fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিজেপির ভয়েই বন্ধ নবান্ন: দিলীপ

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: বৃহস্পতিবার বেরোজগারি, ভ্রষ্টাচারের বিরুদ্ধে যুবমোর্চার ডাকে বিজেপির নবান্ন অভিযান। ঠিক তার আগে রাজ্য সরকার বিঞ্জপ্তি জারি করে জানিয়ে দিল বৃহস্পতি ও শুক্রবার নবান্ন বন্ধ থাকবে। রুটিন স্যানিটাইজেশানের জন্য এই সিদ্ধান্ত। বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের কটাক্ষ, ‘ বিজেপির ভয়েই নবান্ন বন্ধ।’

ঘটনা হল কোভিড পরিস্থিতিতে প্রতি শনিবার রুটিন জীবাণুনাশের প্রক্রিয়া চলে নবান্নে। তবে চলতি সপ্তাহে বৃহস্পতি ও শুক্রবার নবান্নে স্যানিটাইজ করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। বন্ধ থাকবে রাইটার্সও। স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠছে, বিজেপির কর্মসূচির সঙ্গে কি সরকারি সিদ্ধান্তের কোন যোগ রয়েছে? বিজেপির দাবি তাদের ভয়েই নবান্ন বন্ধ করলো প্রশাসন।
বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ নিউটাউনের মার্টিন বার্ন বিল্ডিংয়ে সাংবাদিক বৈঠকে বলেন,’ আগামী বছর বন্ধ হয়ে যাবে এমনিতেই, এখন থেকেই বন্ধ হয়ে গেল। দিদিমণি পালাতে চাইছেন। বিজেপির মুখোমুখি হতে পারবেন না তাই পালাচ্ছেন। কিন্ত আমরাও সহজে ছেড়ে দেবো না। এই দুর্নীতি, হিংসার জবাব দিদিকে দিতে হবে।’ তিনি আরও বলেন,’দিদির পুলিশ এখন যে কোন কর্মসূচি রুখতে হিংস্র হয়ে উঠছে। নবান্ন অভিযানেও একই পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে হলে আমরা তৈরি আছি।’

এদিন তিনি অভিযোগ করেন, ‘ পশ্চিমবঙ্গে যুবকদের সংখ্যা কমে যাচ্ছে। শিক্ষার সুযোগ নেই, উপার্জনের সুযোগ নেই। তাছাড়া এ রাজ্যে কৃষি লাভজনক নয়। তাই বাংলার যুবকরা পরিবার পরিজন ছেড়ে বাইরের রাজ্যে যাচ্ছেন। আমরা দেখেছি পরিযায়ী শ্রমিকদের অধিকাংশ বাংলার কৃষক পরিবারের সন্তান।’

মেদিনীপুরের সাংসদ বলেন, ‘ পশ্চিমবঙ্গে ব্যবসা নেই, নতুন শিল্প নেই। বছর বছর লক্ষ লক্ষ টাকা খরচ করে শিল্প সম্মেলন হয়, একটাও শিল্প আসে না। এ রাজ্যের শিল্পপতিরা বছর বছর শিল্প সম্মেলনে আসেন, ভাষণ দেন, কিন্তু বাইরের রাজ্যে বিনিয়োগ করেন। কারণ সিন্ডিকেট, কাটমানির জন্য শিল্পপতিরা নিজেদের সুরক্ষিত মনে করেন না।’

মনীশ শুক্লার হত্যায় রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র ছিল বলেই মনে করেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি। তিনি বলেন, ‘ এই হত্যা রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের ফলেই হয়েছে। দিদিমণি সেটা জানেন, তাই সিবিআই চাইছেন না। উত্তরপ্রদেশে একটি মেয়ের ধর্ষণকাণ্ডে যোগীজি এসপিসহ ৪ জনকে সাসপেন্ড করেছেন, সিবিআই তদন্ত চেয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রী এক্ষেত্রে সিবিআই চাইছেন না কেন? আমরা মনে করি সিবিআই তদন্ত না হলে প্রকৃত তথ্য উঠে আসবে না। আইওয়াশ করার জন্য কিছু লোককে অপরাধী সাজানো হচ্ছে।’
এদিন তিনি ফের জঙ্গলমহলে মাওবাদীদের সক্রিয় করে মুখ্যমন্ত্রী ভয়ের পরিবেশ তৈরি করছেন বলে অভিযোগ করেন। দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘ জঙ্গলমহলের মানুষ দিদিকে বিশ্বাস করে ঠকেছেন। দিদিমণি সেটা জানেন বলেই এখন ওখানে গিয়ে দান খয়রাতি করছেন। কিন্ত তাতে কাজ হবে না বুঝেই মাওবাদীদের সাহায্য নিয়ে ভয়ের পরিবেশ তৈরি করছেন।’

Related Articles

Back to top button
Close