fbpx
কলকাতাহেডলাইন

নিজেকে মনীষী ভাবছেন নাকি অভিষেক!  টুকলি করে পাশ করা যায় না: দিলীপ ঘোষ

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: একুশে জুলাইয়ে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভার্চুয়াল জনসভার অঙ্গ হিসাবে শনিবার ডায়মন্ডহারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যুবকর্মীদের জন্য নয়া কর্মসূচি ঘোষণা করেন। করোনার এই সঙ্কটের সময়ে তিনি প্রত্যেক যুবকর্মীকে ১০ টি পরিবারের দায়িত্ব নিতে বলেন। এই কর্মসূচি সম্পর্কে পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘ টুকলি করে পরীক্ষায় পাশ করা যায় না।’

 

ঠিক কী বলেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়? নতুন কর্মসূচির ঘোষণা করে তিনি বলেন, ‘ বহু মনীষী বাংলায় জন্মেছেন। তাঁরা যুবসম্প্রদায়কে দেশের দায়িত্ব নিতে বলেছেন। সেই কথায় অনুপ্রাণিত হয়ে যুবশক্তিকে এগিয়ে আসতে আহ্বান জানানো হচ্ছে।’
এ প্রসঙ্গে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেকে মনীষী ভাবছেন নাকি? গত চারমাসতো ওঁর টিকিও দেখা যায়নি। এতোদিন কোথায় ছিলেন? একবার বেরিয়েছিলেন, লোকে এমন তাড়া করেছিল, সেই যে ঘরে ঢুকে খিল দিয়েছেন আর বেরোন নি।’

মেদিনীপুরের সাংসদ আরও বলেন, ‘ আমরা তো এই কর্মসূচি সেই করোনা শুরুর সময়ে শুরু করেছি। এখনও আমাদের কিছু কিছু কার্যকর্তা ৫ টি পরিবারকে খাবার,চাল, ডাল, সবজি দিয়ে চলেছেন। করোনার সংক্রমণ যখন শুরু হয় আমাদের সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডার নির্দেশে আমরা আর্ত পরিবারগুলির পাশে দাঁড়াই। এখনও পর্যন্ত আমরা ৩৫ লক্ষ পরিবারকে চাল, ডাল, তেল, নুন, মশলা দিয়েছি, ২০ লক্ষ পরিবারকে রান্না করা খাবার বিতরণ করেছি। এখন ফিল্ম টেলিভিশন জগতের দুঃস্থ কলাকুশলীদেরও আমরা সাধ‌্যমতো সহায়তা করছি। প্রধানমন্ত্রী বিনামূল্যে রেশনের ঘোষণা করেছেন, আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন ক্ষুদ্র ও অতিক্ষুদ্র উদ্যোগপতিদের জন্য।”

 

এরপরই তিনি প্রশ্ন করেন গত চার মাসে তৃণমূল কী করেছে? নিজেই উত্তর দেন ‘ আম্ফানের ত্রাণ চুরি, রেশনের চাল, ডাল চুরি ছাড়া কিছুই করেনি।’ মেদিনীপুরের সাংসদ বলেন, ‘ এখন নির্বাচন দরজায় কড়া নাড়ছে, তাই মুখ্যমন্ত্রীর মতো চমকদার ঘোষণা করছেন অভিষেক। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেমন কোভিড যুদ্ধে মৃত কর্মীদের চাকরি দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন। এসব নজর ঘোরানোর চেষ্টা, ‘ আই ওয়াশ’। ‘

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একুশে জুলাইয়ের ভার্চুয়াল জনসভাকে কটাক্ষ করে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘ আমরা যখন ভার্চুয়াল জনসভা করলাম তখন উনি বললেন, বিজেপি প্রচুর টাকা খরচ করে এসব করছে। উনি জানতেনই না ভার্চুয়াল জনসভার আয়োজনে সত্যি বলতে খরচই নেই। পরে কেউ ওঁকে বুঝিয়েছেন। এখন আমাদের টুকলি করে একুশে জুলাই ভার্চুয়াল জনসভা করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ওঁর দেখাদেখি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও টুকলি করছেন। তবে বড্ড দেরি করে ফেলেছেন টুকলি করে একুশের যুদ্ধে জিততে পারবেন না।’

Related Articles

Back to top button
Close