fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

একুশে জুলাই ‘প্রহসন দিবস’ পালন করবে বিজেপি, ঘোষণা দিলীপ ঘোষের

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: তৃণমূল কংগ্রেসের শহিদ দিবসের পাল্টা বিজেপি প্রহসন দিবসের ডাক দিল। সোমবার বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ নিজের বাসভবনে সাংবাদিক বৈঠকে এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় কালো পতাকা, কালো ব্যাজ পরে এই কর্মসূচিতে শামিল হবেন বিজেপি কর্মী সমর্থকরা।

এদিন ৯৩ জন শহিদের তালিকা প্রকাশ করে মেদিনীপুরের সাংসদ বলেন, ‘ ১৯৯৩ সালে বাম জমানায় পুলিশের গুলিতে নিহত কংগ্রেসের যুবকর্মীদের স্মরণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শহিদ দিবস পালন করেন। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শহিদ স্মরণের অধিকার হারিয়েছেন। কারণ আজ রাজ্যের কোন বিরোধী নেতা কর্মী সুরক্ষিত নন। উত্তরবঙ্গে আমাদের বিধায়ককে হত্যা করা হলো, আগের সপ্তাহে নদিয়ায় আমাদের কর্মী বাপি ঘোষ খুন হয়েছেন। আগের মাসে মেদিনীপুরে আমাদের আর এক কর্মী পবন জানাকে খুন করা হয়েছে। আপনার জমানায় আজ বিরোধীরা সবচেয়ে বেশি নিপীড়িত। তাই আমি আপনার ঘোষিত শহিদ দিবসকে ধিক্কার জানাচ্ছি।’

তিনি আরও বলেন,’ গণতান্ত্রিক অধিকারকে সুরক্ষিত করতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এক সময়ে যে আন্দোলন করেছিলেন, ক্ষমতায় আসার পর তাঁর রাজ্যেই সেই গণতন্ত্র লুঠ হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রী অনেক বেশি হিংস্র, অমানবিক হয়েছেন।বিরোধীদের গণতান্ত্রিক অধিকার হরণ করা হয়েছে।’ বিজেপি রাজ্য সভাপতির মতে এই শহিদ দিবস এখন স্রেফ প্রহসনে পরিণত হয়েছে। তাই বিজেপি রাজ্যজুড়ে মঙ্গলবার প্রহসন দিবস পালন করবে। শহিদ দিবসের নামে যে নাটক হয় তাহলে বন্ধ হওয়া উচিত। তিনি এদিন বলেন,’ ২০১৩ থেকে এখন পর্যন্ত ১০৬ জন বিজেপি কর্মী, সমর্থক খুন হয়েছেন। কিন্তু বেশ কিছু পরিবারের উপর তৃণমূল চাপ সৃষ্টি করায় তাঁরা অনুরোধ করেছেন ওইসব শহিদের নাম তালিকায় না রাখার জন্য। সেই কারণে কিছু নাম আমরা বাদ দিয়েছি।’
এদিন রাজ্যে ঘটে চলা সন্ত্রাসের বিষয়ে মুখ খোলেন তিনি। দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘ রাজ্যে স্বৈরাচারী, অমানবিক শাসন চলছে। আমাদের নেতা, কর্মীরা খুন হচ্ছেন। চোপড়াতে একটি কিশোরীকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে। মহিলা মুখ্যমন্ত্রীর রাজ্যে আজ মহিলারাও সুরক্ষিত নন। এই সমস্ত ঘটনাকে ধামাচাপা দিতে কুযুক্তি দিচ্ছে। এই ভয়ঙ্কর পরিস্থিতিতে বর্তমান সরকারকে কতোদিন থাকতে দেওয়া উচিত, তা ভাবুক রাজ্যবাসী।’

Related Articles

Back to top button
Close