fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

উৎসব নয়, ভোটের জন্যই অনুদান তোপ দিলীপের

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: দুর্গা পুজোর আয়োজনে সরকারি অনুদান প্রশ্নে বিস্তর প্রশ্ন উঠেছে। জনস্বার্থ মামলা গড়িয়েছে হাই কোর্ট পর্যন্ত। অনুদানের অর্থ কতটা, কোন খাতে খরচ করতে হবে তাও নির্দিষ্ট দিয়েছে আদালত। এবার অনুদান প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা করলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি স্পষ্ট বলেন, ‘ভোটের কথা মাথায় রেখেই ক্লাবকে অনুদান দিচ্ছেন দিদি।’

প্রথমে বিভিন্ন পুজো কমিটিগুলিকে অনুদান দেওয়ার পর মুখ্যমন্ত্রী সম্প্রতি ঘোষণা করেছিলেন, ১০ বছরের পুরনো ক্লাবগুলিও প্রত্যেকে ৫০ হাজার টাকা সরকারি অনুদান পাবে। এরপরই পুজোয় সরকারি অনুদানের যৌক্তিকতা নিয়ে কলকাতা হাই কোর্টে একটি মামলা দায়ের হয়। শুক্রবার সেই মামলার শুনানি ছিল। সেখানে দু’পক্ষের সওয়াল-জবাবের পর বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ অন্তর্বর্তীকালীন নির্দেশ দেয়, ক্লাবগুলোকে সরকারি অনুদানের অর্থের ৭৫ শতাংশই খরচ করতে হবে মাস্ক, স্যানিটাইজারের মতো কোভিড কিট কেনার কাজে। দর্শনার্থীদের ওই সমস্ত সামগ্রী বিলি করতে হবে। কোনও বিনোদনূমলক অনুষ্ঠানে এই অর্থ একেবারেই খরচ করা যাবে না। বাকি ২৫ শতাংশ অর্থ জনসংযোগে ব্যয় করা যেতে পারে
আদালতের এই নির্দেশকে স্বাগত জানিয়েছেন মেদিনীপুরের সাংসদ। তিনি বলেন, ‘পুজোয় সরকারি অনুদান নিয়ে সমালোচনা হচ্ছিল। পুজো কমিটিতো টাকা চাননি, সাধারণ মানুষও চাননি। এটা রাজনীতির খেলা। আপনাদের মনে আছে ইমামভাতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল, তখন সরকার যুক্তি দিয়েছিল টাকাটা দেবে ওয়াকফ বোর্ড। এখানেও প্রশ্নের মুখে পড়ে একইরকম কু যুক্তি দিচ্ছেন।’

শুক্রবার অনুদান ইস্যুতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করেন তিনি আরও বলেন, ‘৫০ হাজার টাকার মাস্ক, স্যানিটাইজার লাগে না। রাজনীতিকে ধার্মিক আকারে নিয়ে গিয়ে যেভাবে ভোট পাওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে তা আগামী দিনে বন্ধ হওয়া দরকার। কোর্ট যা দিক নির্দেশ দিয়েছে তা মেনে চলা উচিত।’

Related Articles

Back to top button
Close