fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

বিধায়ক হত্যার সুবিচার পেতে সুপ্রিমকোর্টে যাওয়ার হুমকি দিলীপ ঘোষের

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: উত্তরবঙ্গের হেমতাবাদের বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়ের মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলেই মান্যতা দিয়েছে রাজ্য সরকার। স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় ময়নাতদন্তের রিপোর্ট উল্লেখ করে জানিয়েছেন আত্মহত্যাই করেছেন হেমতাবাদের বিজেপি বিধায়ক। বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ অবশ্য আত্মহত্যা তত্ত্ব বিশ্বাস করেন নি। তিনি পাল্টা হুঁশিয়ারি দিয়েছেন সুবিচার পেতে সুপ্রিমকোর্টেও যেতে পারেন।

 

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নিজ বাসভবনে সাংবাদিক বৈঠকে তিনি বলেন, ‘ প্রশাসনিক ব্যবস্থায় যে যে বিধান আছে সেটাই আমরা দেখছি। যে ধরণের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে যেখানে একজন বিধায়কের জীবনও সুরক্ষিত নয়।এটা খুবই উদ্বেগের বিষয়। এখানকার বিচারব্যবস্থায় আস্থা নেই মানুষের। দীর্ঘ দিন শুনানি হয় না, মামলা পড়ে থাকে। সবকিছুই রাজনীতিকরণ হয়ে গিয়েছে। তাই প্রয়োজন হলে আমরা সুপ্রিম কোর্টেও যেতে পারি। আগেও গিয়েছি, দাড়িভিটের ঘটনা নিয়ে, পুরুলিয়ার বলরামপুরের ঘটনা নিয়ে গিয়েছি।’

 

এদিন দিল্লিতে বিজেপি প্রতিনিধিদল রাষ্ট্রপতি, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করেন। এ বিষয়ে ফিরহাদ হাকিম কটাক্ষ করে রাষ্ট্রসঙ্ঘের যাওয়ার পরামর্শ দেন। প্রতিক্রিয়ায় মেদিনীপুরের সাংসদ বলেন, ‘ সিএএ নিয়ে আন্দোলন করার সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাষ্ট্রসঙ্ঘে যাওয়ার কথা বলেছিলেন। আমাদের রাষ্ট্রসঙ্ঘে যাওয়ার দরকার নেই। আমরা জনতার দরবারে যাব। জনতাই শেষ বিচার করবে। একুশের জনতার রায়ের জন্য দিদিমনি তৈরি থাকুন।’

 

 

ববি হাকিমের স্মৃতিশক্তি কমে বলে কটাক্ষ করে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘ একটা সময় কুকুর মারা গেলেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সিবিআই তদন্ত চাইতেন। ববি হাকিমের স্মৃতিশক্তি কমে, তাই ভুলে গিয়েছেন, রিজানউর রহমান আত্মহত্যার ঘটনাকে খুন বলে দাবি করে বাংলা অচল করে দিয়েছিলেন।মৃতদেহের রাজনীতি করে ক্ষমতায় এসেছেন, কিন্তু দোষীরা কেউ শাস্তি পায়নি।’

 

এদিন এতো দ্রুত ময়নাতদন্তের রিপোর্ট প্রকাশ করা নিয়ে তাঁর মন্তব্য, ‘ ময়নাতদন্তের রিপোর্ট তৈরি করাই ছিল। ভূক্তভোগীমাত্র জানেন ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেতে কতো সময় লাগে। হঠাৎ করে সেই প্রশাসন এতো যোগ্য হয়ে গেল যে এতো দ্রুত ময়নাতদন্ত করে রিপোর্ট প্রকাশ করে দিল। আমরা গোড়া থেকেই সিবিআই তদন্ত চাইছি, তাতে’ দুধকা দুধ, পানি কা পানি’ হয়ে যাবে। মানুষ বলছে, আমাদের কাছেও খবর আছে পুলিশই ওঁর বুকপকেটে সুইসাইড নোট গুঁজে দিয়েছিল। কিন্তু আমরা জানি দিদি সিবিআই তদন্ত করাবেন না। সরকারের মনে পাপ আছে। তাই সত্য চাপা দিতে সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন ।’
দিল্লিতে রাষ্ট্রপতি ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কাছে বিজেপির প্রতিনিধি দলের যাওয়ার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ আমরাতো সব ছেড়ে ভগবানের কাছে শুধু প্রার্থনা করতে পারি না। তাই গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় দুই শীর্ষ স্তম্ভের কাছে আমাদের অভিযোগ জানাতে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব গিয়েছিলেন।’

 

একইসঙ্গে তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দেন, ‘ আমরা ৩৫৬ ধারায় বিশ্বাসী নই। আমরা কখনও কোন নির্বাচিত সরকারকে সরাই নি। আমরা গণতন্ত্রের রীতি মেনে মানুষের রায়ে বিশ্বাসী।’
তিনি আরও জানান, ‘ বুধবার পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচী অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে রাজ্যজুড়ে থানা ঘেরাও কর্মসূচি পালিত হবে।’

Related Articles

Back to top button
Close