fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বলবিন্দারকাণ্ডে মেরুকরণের অভিযোগ দিলীপ ঘোষের

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়,  বর্ধমান: বিজেপির নবান্ন অভিযানে বলবিন্দার সিংয়ের গ্রেফতারি নিয়ে শাসক ও বিরোধী দল বিজেপির চাপান উতোর অব্যাহত। শনিবার বর্ধমানে রীতিমতো বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। স্পষ্টই রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে মেরুকরণের অভিযোগ করলেন।
 তিনি বলেন, ‘ আমাদের প্রিয়াঙশু পাণ্ডের দেহরক্ষীকে কেস দেওয়া বা গ্রেফতার করার আইন নেই। তাকে যেভাবে পুলিশ মেরেছে তা নিন্দনীয়। আমি চ্যালেঞ্জ করছি গোলটুপি মাথায় থাকলে তাকে মারতে পারতো! একজন শিখ বলে পাগড়ি খুলে দিয়েছে। যারা বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত তাদের লাথি খেয়ে শান্তি মিছিল করে। আমরা আইন মানি বলে এসব হচ্ছে। এসব অগণতান্ত্রিক, তোষণের রাজনীতি।’
দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিতে এদিন বর্ধমান উল্লাস মোড়ে জেলা পার্টি অফিসে আসেন দিলীপ ঘোষ । পার্টি অফিসে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে দিলীপ ঘোষ আরও বলেন , ‘হাওড়ায় লাথি খেয়েও পুলিশ কিছু করেনি।নবান্ন অভিযানে বিজেপি কর্মীরা মার খেয়েছেন,লাঠি খেয়েছন।উল্টে বিজেপি কর্মীদের  বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘রাজ্যে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার লড়াই চলছে।টি এম সি যতখুশি কর্মসূচি করছে।শুধু বিজেপি করলেই বাধা আসছে’।
শনিবার বিকেলে বর্ধমানের কর্মী সভা শেষ করে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জামালপুরের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন।  নুড়ি মোড়ের কাছে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকেরা সেখানে কালো পতাকা হাতে নিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। অভিযোগ ওই রাস্তা দিয়ে দিলীপ ঘোষ সহ বিজেপির কর্মী সমর্থকেরা যাওয়ার সময় তাদের লক্ষ্য করে ইট ছোঁড়া হয়। বেশ কিছু বিজেপি সমর্থক প্রতিবাদ করতে এগিয়ে গেলে দুই দলের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়।
জামালপুর থানার পুলিশ লাঠি নিয়ে তেড়ে গিয়ে দুই পক্ষকে হটিয়ে দেয়। এদিন জামালপুরের সাহাপুর প্রগতি মঞ্চ ময়দানে কৃষক সমাবেশে যোগ দেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি । মঞ্চ থেকে  তিনি বলেন, ‘বর্ধমান থেকে জামালপুর আসার পথে যেভাবে হামলা চালানো হল, ইট পাটকেল খেতে হলো ভাবতে পারিনি। কিন্তু এই ভাবে বিজেপিকে আটকানো যাবে না। নবান্ন অভিযান করে আমরা দেখিয়ে দিয়েছি। আজ র‍্যালিতে আমাদের সঙ্গে তো প্রায় তিনশো ছেলে ছিল। তারা যদি ওদের মাড়িয়ে চলে যেত তাহলে কি খুঁজে পাওয়া যেত। ধান মাড়ানোর মতো করে মাড়িয়ে দিত।’ তৃণমূল কংগ্রেসকে হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন,’ যে দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে তোমরা চিৎকার করছিল সেই কার্যালয়ের প্রত্যেকটা ইট আমরা খুলে নিয়ে আসতে পারি। ‘
সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন,’ আমি গ্রামের দিকে গেলে যে জায়গায় আমরা যে তিনি জিতি সেখানে গাড়ি আটকে ইটপাটকেল ছুড়ে কালোপতাকা দেখানো হয় এখানেও একই ঘটনা ঘটেছে। পুলিশের সামনে ঘটনা ঘটলো আমিতো অবাক হয়ে ভাবছি এরকম ঘটনা কতদিন চলবে ।যেভাবে জনরোষ বাড়ছে তাতে যদি পাল্টা হামলা হয় তাতে কি আইন-শৃঙ্খলা থাকবে নাকি সরকার সামলাতে পারবে। ‘
মেদিনীপুরের সাংসদ বলেন, ‘ বিজেপি সাধারণ মানুষের সঙ্গে আছে। বিজেপি যে কথা দেয় সেই কথা রাখে। তাই দেখা যাচ্ছে সারা দেশজুড়ে যখন নির্বাচন হচ্ছে বিজেপির আসন বাড়ছে। বিধানসভা নির্বাচনে ২০০ আসন পেয়ে বিজেপি বাংলায় সরকার গড়বে। তাই যারা ভয় দেখানোর চেষ্টা করছে , বাধা দেওয়ার চেষ্টা করছে তাদেরকে বলছি অভ্যাস পাল্টান।  সময় বদলে গেছে মানুষ বদলে যাচ্ছে সোনার বাংলা গড়ে আগামীদিনের ছেলেমেয়েদের জন্য ভবিষ্যতে গড়বো আমরা।’
অনুব্রত মণ্ডল মন্ত্রী আশীষ ব্যানার্জিকে অপদার্থকে প্রসঙ্গ তুলে ধরে প্রসঙ্গে তিনি বলেন শুধু একজন নয়, গোটা দলটাই অপদার্থ তাই  মনের কথাটা বলতেই পারেন আগামী দিনে সেটা প্রমাণ হয়ে যাবে।’

Related Articles

Back to top button
Close