fbpx
কলকাতাহেডলাইন

একুশে সফল হয়ে মায়ের হাতে পায়েস খেতে চান দিলীপ ঘোষ

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: শনিবার দিনটা তাঁর জীবনে একটা বিশেষ দিন হলেও রোজকার রুটিনে কোন বদল নেই। ভোরে ইকো পার্কে প্ৰাতঃভ্ৰমণ সেরে ভূতনাথ মন্দিরের কাছে চা চক্রে যোগ দেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। অবশ্য সাধারণ মানুষ তাঁকে জন্মদিনের শুভেচ্ছায় ভরিয়ে দিয়েছেন। নিজের ৫৬ বছরের জন্মদিনে অবশ্য একটা আপশোষ থেকেই যাচ্ছে। করোনা সংক্রমণের কারণে নানা বিধিনিষেধের বেড়ায় মা পুষ্পলতা ঘোষের হাতে গ্রামের বাড়িতে গিয়ে পায়েস খেতে পারলেন না। দিলীপ ঘোষ এদিন বলেন, ‘ এবারে করোনার জেরে নানা বিধিনিষেধ। তাই আর মায়ের হাতে জন্মদিনের পায়েস খাওয়া হল না। একুশে বাংলায় বিজেপির সরকার গড়েই মায়ের হাতে পায়েস খাবো।’

প্রশ্ন ছিল জন্মদিনের ‘ রেসোলিউশান’ কী? জবাবে বিজেপির মেদিনীপুরের সাংসদ বলেন, ‘দেখো সারাজীবন সমাজসেবা আর রাজনীতি করে কেটে গেল। নিশ্চিতভাবেই চাইবো দলীয় কর্মীরা যে লক্ষ্যে বলিদান দিয়েছেন অর্থাৎ বাংলায় বিজেপির সরকার গড়া, সেই লক্ষ্য সফল হোক।’ নিজেই জানালেন তাঁর জীবনের আদর্শ পুরুষ স্বামী বিবেকানন্দ। স্বামীজি যে নতুন ভারত গড়ার আহ্বান করেছিলেন সেই লক্ষ্য নিয়েই নতুন বাংলা গড়তে চান তিনি। আর অবশ্যই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দেখানো পথে এগোতে চান । দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘ অসাধ্য সাধন করেছেন মোদিজি। তাঁর দূরদৃষ্টির জন্যই ভারত আজ বিশ্বের কাছে সম্মান, মর্যাদা পাচ্ছে। বাংলায় সরকার গড়ে মোদিজির ‘সব কা সাথ, সবকা বিকাশের’ লক্ষ্য পূরণ করতে চাই।’

আরও পড়ুন: সরকারকে তোয়াক্কা না করে, নিজেরাই বাড়াল ট্যাক্সি ভাড়া, উঠলেই গুনতে হবে ৫০ টাকা

এদিন লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লা, কেন্দ্রীয় পরিবেশ দফতরের প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় সহ বহু বিশিষ্ট মানুষ দিলীপ ঘোষকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি বলছেন, ‘ আমার কাছে ব্যক্তির আগে দল। তাই একুশে বিজেপি যাতে সাফল্য পায় তারজন্য প্রত্যেকের কাছে শুভকামনা চাইছি।’

Related Articles

Back to top button
Close