fbpx
একনজরে আজকের যুগশঙ্খপশ্চিমবঙ্গ

ভোটপ্রচারে বেরিয়ে বাধার মুখে দিনহাটার বিজেপি প্রার্থী, আক্রান্ত বিধায়ক মিহির গোস্বামীও

নিজস্ব প্রতিনিধি: দিনহাটায় আসন্ন বিধানসভা উপনির্বাচনকে কেন্দ্র করে বেশ কয়েকদিন ধরেই পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সোমবার প্রচারে বেরিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়লেন বিজেপি প্রার্থী অশোক মণ্ডল এবং দলীয় বিধায়ক মিহির গোস্বামী। এদিন বিজেপি এবং তৃণমূলের কর্মী- সমর্থকরা বিবাদে জড়িয়ে পড়েন।

স্লোগান, পাল্টা স্লোগানের পাশাপাশি ধাক্কাধাক্কির ঘটনাও ঘটে দিনহাটার বামনহাট এলাকায়। বিজেপির অভিযোগ শাসকদল উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এসব ঘটাচ্ছে। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

৩০ অক্টোবর কোচবিহার জেলার দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচন। সোমবার ভোটপ্রচারে নেমেছিলেন বিজেপির নেতা-কর্মীরা। এদিন সকালে বামনহাট এলাকায় বাড়ি-বাড়ি গিয়ে প্রচার সারছিলেন দিনহাটার বিজেপি প্রার্থী অশোক মণ্ডল ও তাঁর অনুগামীরা। সঙ্গে ছিলেন নাটাবাড়ির বিধায়ক মিহির গোস্বামীও। বাড়ি বাড়ি ঘুরে প্রচার করার সময় বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন স্থানীয়রা। তাঁরা বলতে থাকেন, “নিশীথ প্রামাণিক কোথায়? যাঁকে ভোট দিয়েছিলাম সেই নিশীথ কোথায়?” উল্লেখ্য একুশের বিধানসভা নির্বাচনে দিনহাটা কেন্দ্র থেকে মাত্র সাতান্ন ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়েছিলেন বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামানিক। কিন্তু তিনি বিধায়ক নির্বাচিত হওয়ার পর সাংসদ পদ ধরে রেখে বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দেন। পরবর্তীকালে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রীও হয়েছেন। সেই কারণেই দিনহাটায় উপনির্বাচন হচ্ছে। এদিন সেই প্রসঙ্গ তুলে বেশ কয়েকজন স্থানীয় মানুষ নিশীথ প্রামাণিকের খোঁজ করেন। যদিও প্রথমে বিক্ষোভকে পাত্তা দেননি বিজেপি নেতাকর্মীরা। কিন্তু কিছুক্ষণ পর পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। বিজেপির অভিযোগ, তাঁদের প্রার্থীকে প্রচারে বাধা দেওয়া হচ্ছে। পাল্টা প্রতিবাদ করেন বিজেপি কর্মীরা। এরপর দফায়-দফায় দু’পক্ষের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি হয়। শেষপর্যন্ত দিনহাটার বিজেপি প্রার্থী অশোক মণ্ডল প্রচার ছেড়ে ফিরে যেতে বাধ্য হন।

বিষয়টি নিয়ে নাটাবাড়ির বিজেপি বিধায়ক মিহির গোস্বামী বলেন, “তৃণমূল গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না। তারা অশান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছে। দিনহাটার পরিস্থিতি আফগানিস্তানের চেয়েও ভয়ঙ্কর। সেখানকার মানুষ দিনহাটার ছবি দেখলে লজ্জা পাবে।” প্রতিটি বুথে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তাবাহিনী মোতায়েন করে ভোটের দাবি করেছেন তিনি। অন্যদিকে বামনহাটা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান তথা তৃণমূল নেতা দীপককুমার ভট্টাচার্য জানান, “কয়েক মাস আগেই আমরা নিশীথ প্রামাণিককে ভোট দিয়েছিলাম। তাঁকে জিতিয়েছিলাম। তারপর তিনি বিধায়ক পদ ছেড়ে দিলেন। আবার কেন আমরা ভোট দেব? আর কেন্দ্রীর সরকার ক্রমাগত তেল, গ্যাসের দাম বাড়িয়ে চলেছে। আমজনতার নাভিশ্বাস তুলে বারবার ভোটের ব্যবস্থা করছে বিজেপি।”

এর আগে মনোনয়নপত্র পেশ করার দিন বিজেপি প্রার্থী অশোক মন্ডলকে বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়েছিল। এবার প্রচারে বেরিয়েও বিক্ষোভের মুখোমুখি হলেন তিনি। সব মিলিয়ে দিনহাটা উপনির্বাচনকে ঘিরে টানটান উত্তেজনা রয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close