fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

লকডাউনকে থোড়াই কেয়ার… প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করে চলল টোটো ও বাইকের দাপাদাপি

নিজস্ব সংবাদদাতা দিনহাটা: করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমেই বেড়ে চলায় কঠিন এই সময়কালে সেপ্টেম্বরের সাপ্তাহিক লকডাউনের প্রথম দিন যথেষ্ট সাড়া মিলল দিনহাটায়। হাট-বাজার দোকানপাট সব বন্ধ থাকলেও রাস্তায় বাইক ও টোটোর দাপাদাপি ছিল অনেকটাই। পাশাপাশি পুলিশ লকডাউন মোকাবেলায় সকাল থেকেই রাস্তায় থাকলেও পুলিশকে অনেকটাই সাথ দিল বৃষ্টি। সোমবার সকাল থেকেই কখনও মুষলধারে আবার কখনও ঝিরিঝিরি বৃষ্টির ফলে লকডাউনকে সফল করে তুলতে বেগ পেতে হয়নি পুলিশকে। তা সত্ত্বেও বেলা যত বেড়েছে পাল্লা দিয়ে শহরের বিভিন্ন এলাকায় একদিকে টোটো আরেকদিকে বাইকের দাপাদাপি পাড়তে থাকে।

অনেকেই কোনও রকম কাজ ছাড়াই বাইক নিয়ে বেরিয়ে পড়েন শহরের বিভিন্ন এলাকায়। বৃষ্টির জন্য পুলিশ সেভাবে না আটকালেও এদিন দিনহাটা শহরের পাঁচ মাথার মোড়ে টোটো ও বাইকের যাতায়াত ছিল অন্যান্য দিনের তুলনায় অনেকটাই বেশি। শহরবাসীরা অনেকেই বলেন, বাইক ও টোটো যে ভাবে চলছে তা দেখে মনে হচ্ছে না লকডাউন। তা সত্ত্বেও দিনহাটার এসডিপিও মানবেন্দ্র দাস, আইসি সঞ্জয় দত্ত, সাহেবগঞ্জ থানার ওসি সৌমাল্য আইচ, নয়ারহাট থানার আধিকারিক অভিষেক লামা, সিতাই থানার ওসি সূর্যদীপ্ত ভট্টাচার্যের নেতৃত্বে পুলিশ বিভিন্ন এলাকায় লকডাউন সফল করে তুলতে বিশেষ নজরদারি চালান।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে যে, লকডাউনের মধ্যেও যারা অযথা বাইক নিয়ে বের হয়েছেন এমনই ৬টি বাইক আটকানো হয়েছে।

লকডাউনকে সফল করে তুলতে ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি পুলিশ ও প্রশাসনের পক্ষ থেকে নানাভাবে চেষ্টা চালানো হলেও কোনও কোনও টোটো অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে এদিন চলাচল করে।

মহাকুমা ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক রানা গোস্বামী, ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সম্পাদক উৎপলেন্দু রায় বলেন যে, লকডাউনে এদিন দিনহাটায় সবরকম দোকানপাট বন্ধ ছিল। এভাবে স্বতঃস্ফূর্ত লকডাউনে কিছুটা হলেও রোগের প্রকোপ কমবে বলেও তারা মনে করেন। পাশাপাশি দোকান খুললেও ব্যবসায়ীরা যাতে সকলেই সামাজিক দূরত্ব এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে তার জন্য সকলের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close