fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল দিনহাটা

নিজস্ব সংবাদদাতা, দিনহাটা: তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল দিনহাটা ২ নম্বর ব্লকের নাজিরহাটের শালমারা বাজার। শুক্রবার সকাল থেকেই দফায় দফায় সংঘর্ষ, অগ্নি সংযোগের ঘটনায় রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় এলাকা। তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে রীতিমতো বোমা, গুলি, তীর ধনুক এবং আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে আক্রমনের ঘটনা ঘটে । বেশ কয়েকটি বাইকে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়। প্রকাশ্যে দলের একপক্ষ অপর পক্ষকে লক্ষ্য করে তীর ও বোমা ছোড়ে বলে অভিযোগ।

এছাড়াও উভয়পক্ষের মধ্যে আক্রমণ প্রতি আক্রমনের ঘটনায় আহত হয় উদয়ন ঘনিষ্ঠ তৃণমূল নেতা তাস্কির চৌধুরী সহ বেশ কয়েকজন। তাকেও রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ঘটনার খবর পেয়ে এক বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছালে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এই ঘটনায় পুলিশ ইতিমধ্যে তীর ধনুক সহ দুই জনকে গ্রেফতার করে। এছাড়াও কয়েক জনকে আটক করা হয় বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। পরিস্থিতি বর্তমানে থমথমে।

উল্লেখ্য, তৃণমূলের দিনহাটা দুই ব্লকে মির হুমায়ুন কবিরকে সরিয়ে ব্লক সভাপতি করা হয় উদয়ন ঘনিষ্ঠ বিষ্ণু সরকারকে। এদিকে এদিন সকালে নাজিরহাটে দুই পক্ষের গন্ডগোলকে ঘিরে রণক্ষেত্রের চেহারা নেই এলাকা। তৃণমূলের বিভিন্ন ব্লক সভাপতি ঘোষণার পর থেকেই দিনহাটার বিভিন্ন এলাকায় বেশ কিছুদিন ধরেই তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব চরম আকার নেয়। এলাকায় ক্ষমতা দখলকে কেন্দ্র করেই এদিন এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। একদিকে দিনহাটার বিধায়ক উদয়ন গুহ-এর অনুগামী অপরদিকে তৃণমূলের নাজিরহাট দুই অঞ্চলের প্রাক্তন সভাপতি তরণী কান্ত বর্মনের অনুগামীদের মধ্যেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ঘটনা ঘটে।

                       আরও পড়ুন: অবসরের পথে পুতিন? কার হাতে রাশিয়ার ভবিষ্যৎ?

উভয়গোষ্ঠী নিজেদের মতো নানা কর্মসূচি গ্রহণ করে আসছে। এদিন শালমারা বাজারে এই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব চরম আকার নেয়। এক গোষ্ঠী অপর গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে রীতিমতো আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে আক্রমণ করে বলে অভিযোগ। বেশ কয়েকটি মোটরবাইক পুড়িয়ে দেওয়া ছাড়াও বোমা ও তীর মারার ঘটনায় কয়েকজন আহত হয় বলেও জানা গিয়েছে।

বিজেপির কোচবিহার জেলা সম্পাদক সুদেব কর্মকার বলেন, ‘গ্রাম পঞ্চায়েতের ক্ষমতা দখলকে কেন্দ্র করে তৃণমূলের দুই গোষ্ঠী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে । তৃণমূলের সন্ত্রাসে সাধারণ মানুষ আতঙ্কিত হয়ে উঠেছে। বিধায়ক উদয়ন গুহ গোষ্ঠীর সঙ্গে এলাকার তৃণমূলের অপর গোষ্ঠীর এই গণ্ডগোলের ঘটনায় মানুষ এদের উপযুক্ত জবাব দেবে।“ তৃণমূলের দিনহাটা দুই ব্লক সভাপতি বিষ্ণু সরকার বলেন, ‘দলীয় কার্যালয় দখলকে কেন্দ্র করেই এদিন এই গন্ডগোলের সূচনা হয়। বেশ কয়েকজনের মোটর বাইকে আগুন লাগিয়ে দেওয়া ছাড়াও কয়েকজনকে মারধর করা।’

     আরও পড়ুন: ভাতারে টোটো-সাইকেলে ধাক্কা দিয়ে উলটে গেল ইঁট বোঝাই ট্রাক্ট্রর,আহত ৪

স্থানীয় তৃণমূল নেতা তরণী কান্ত বর্মন বলেন, “এদিন বাইরে থেকে লোক নিয়ে এসে এলাকায় অশান্তি সৃষ্টির চেষ্টা করেছিল। এলাকার তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা তাদের প্রতিহত করে। কারও অঙ্গুলিহেলন ছাড়া এই ঘটনা সম্ভব নয়।যারা হঠাৎ করে তৃণমূলে এসে দলের নাম ভাঙিয়ে তৃণমূলকে নানাভাবে ক্ষতি করার চেষ্টা করছে তাদের এখানকার তৃণমূল কর্মীরা কখনোই করতে দেবেনা।” বিধায়ক উদয়ন গুহ বলেন, “এদিনের এই ঘটনায় দোষীরা যাতে উপযুক্ত শাস্তি পায় তার জন্য পুলিশকে দেখতে বলা হয়েছে।”m জেলা পুলিশ সুপার মহম্মদ সানা আখতার বলেন, “শালমারার ঘটনায় ইতিমধ্যে দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশি অভিযান চলছে। পরিস্থিতি বর্তমানে স্বাভাবিক।

Related Articles

Back to top button
Close