fbpx
কলকাতাহেডলাইন

কন্ঠ রোধ করে ঠেকানো যাবে না কৃষক বিলের অসন্তোষ: অভিষেক

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: কৃষক বিলের বিরোধিতা ঢেউকে মোদি সরকার কিভাবে আটকাবেন? রবিবার নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে কার্যত এইভাবেই চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন তৃণমূল সাংসদ তথা যুব সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। ঋণ ফের একবার নজিরবিহীনভাবে কৃষকদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আক্রমণ করেন তিনি।
এদিন টুইটারে অভিষেক লেখেন, “এটা সবাই বেশ পরিস্কার করে দেখতে পেয়েছেন যে জন প্রতিনিধিদের কীভাবে সংসদে লজ্জাজনক ভাবে দমন করা হচ্ছে। কিন্তু বিজেপি জানে না তারা কতবড় এক দৈত্যকে জাগিয়ে দিয়েছে, এবার রাস্তার প্রত্যেকটা কন্ঠ তাঁদের চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেবে। নরেন্দ্র মোদিজি আপনি এবার এই বিরোধীতার ঢেউকে আটকাবেন কীভাবে”।
সংসদের উচ্চকক্ষের কৃষি বিল পাস নিয়ে উত্তাল হয়েছে রাজ্য রাজনীতি। কেন্দ্র বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো একযোগে বিরোধিতা করেছে এই কৃষি বিলের। বিল পাস হওয়ার ফলে কৃষকদের স্বার্থ যেমন রক্ষিত হবে না তেমন পুরো বিষয়টি পুঁজিপতিদের দিকে চলে যাবে বলে দাবি করেছে বিরোধীরা। এই নিয়ে রাজ্য তথা দেশজুড়ে শুরু হয়েছে প্রতিবাদ আন্দোলন। এর মধ্যেই ফের একবার এই বিল নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে নিশানা করলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও রাষ্ট্রপতি এখনও এই বিলে সাক্ষর করেননি বলেই জানা গিয়েছে।
অন্যদিকে এদিন কলকাতা কৃষক বিলের প্রতিবাদ দেখিয়ে রাস্তায় নামে কলকাতা শিখ সংগত। রবিবার সকালে সন্থ কুঠিয়া গুরুদ্বারা থেকে তারা প্রতিবাদ মিছিল বের করে। এলগিন রোড হয়ে মিছিল সোজা গান্ধী মূর্তির পাদদেশে পৌঁছায়। তাদের দাবি, নতুন কৃষক বিলে কী ভাবেই স্বার্থ রক্ষিত হয়নি কৃষকদের। এই বিলের ফলে ছোট বড় সব ধরণের কৃষকেরা সমস্যায় পরবেন। পাশাপাশি কৃষকের যে ক্ষমতা এত দিন ছিল নিজের জমির ওপর। এবার সেই ক্ষমতা চলে যাবে পুঁজিপতিদের হাতে সরাসরি। এক প্রকার ইংরেজ আমলের সেই নিলকর চাষির বিভীষিকার দিন ফিরিযে আনতে চাইছে মোদি সরকার। দেশের কৃষক যদি খুশিতে না থাকে সেই প্রভাব পরবে আম জনতার ওপর। তাই এই বিলের সম্পূর্ণ বিরোধিতা করছি।

Related Articles

Back to top button
Close