fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিজেপি সাংসদকে হোম কোয়ারেন্টাইনের নির্দেশিকা পাঠালো জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর, নির্দেশ ফেরত পাঠালেন সাংসদ

অভিষেক আচার্য, কল্যাণী: এবার তৃণমূলের কুনজরে পড়লেন নদীয়ার রানাঘাট লোকসভার বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার। রানাঘাট সাংসদ জগন্নাথ সরকার কে স্বাস্থ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে হোম কোয়ারেন্টাইনের নির্দেশিকা পাঠালো জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর। মঙ্গলবার ভোর ৩ টে নাগাদ নোটিশ নিয়ে হাজির হন এক স্বাস্থ্য দপ্তরের অধিকর্তা। জগন্নাথবাবু নবদ্বীপের একটি সেন্টারে পরিদর্শনে গিয়েছিলেন সেখানে যাওয়ার কারণেই তাঁকে হোম কোয়ারেন্টাইন থাকার নির্দেশ দেয়া হয় বলে জানা যায়। রাত্রে সেই নোটিশ তিনি ফিরিয়ে দেন। পরবর্তীতে সকালে রানাঘাট মহকুমা পুলিশ আধিকারিক ও শান্তিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ও স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকরা আবার পুনরায় নোটিশ নিয়ে হাজির হন তাঁর বাড়িতে।

আরও পড়ুন: মুর্শিদাবাদে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৫৯, সুস্থ ৯

তার অভিযোগ রাজনৈতিক কারণে তাকে পরিকল্পনামাফিক দপ্তর ও পুলিশের পক্ষ থেকে তাকে গৃহবন্দি করার প্রচেষ্টা । তার দাবি যে এই বিপর্যয়ের সময় তিনি দুর্নীতির ও অন্যায়ের প্রতিবাদ করছেন অসহায় মানুষের পাশে থাকছেন। তিনি আরও অভিযোগ করেন ওই ঘটনাস্থলে কয়েকশো দলীয় কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে হাজির হয়েছিলেন নবদ্দীপ পৌরসভার তৃণমূল পৌরপিতা বিমান কৃষ্ণ সাহা। তাহলে বিমান কৃষ্ণ সাহা সহ অন্যান্য সকলকে কেন কোয়ারেন্টাইন এ রাখা হচ্ছে না। শুধুমাত্র তিনি সাংসদ বলে কি রাজনৈতিক ভাবে বন্দি করার উদ্দেশ্যে এই উদ্যোগ সরকারের ? যদি সকলকেই এই একই নিয়মে আয়ত্তের মধ্যে আনতে পারে স্বাস্থ্য দফতর তাহলে তিনিও স্বেচ্ছায় হোম কোয়ারেন্টাইন থাকবেন। এই বলে নোটিশ না নিয়ে ফিরিয়ে দেন স্বাস্থ্য অধিকর্তা কে।

এই বিষয়ে জগন্নাথ সরকার বলেন, সবটাই তৃণমূলের চক্রান্ত। আমি বেরোচ্ছি। কাজও করছি। এই ভাবে একজন সাংসদকে আটকানো যাবে না বলে জানিয়ে দেন সাংসদ।

Related Articles

Back to top button
Close