fbpx
হেডলাইন

তৃণমূলের বিজয়া সম্মিলনীর অনুষ্ঠানে বিজেপিকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করলেন দলের জেলা সভাপতি অজিত মাইতি

সুদর্শন বেরা, পশ্চিম মেদিনীপুর: বৃহস্পতিবার বিকালে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ঘাটাল শহরে তৃণমূল কংগ্রেসের ঘাটাল বিধানসভা এলাকার দলীয় কর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে বিজয়া সম্মিলনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা কমিটির চেয়ারম্যান বিধায়ক দিনেন রায়, জেলা সভাপতি অজিত মাইতি ও সাধারণ সম্পাদক গোপাল সাহা ,ঘাটালের বিধায়ক শংকর দোলুই, তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা দিলীপ মাজি ও অরুন মন্ডল সহ আরো অনেকে।তৃণমূলের বিজয়া সম্মিলনীর অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকল তৃণমূল কংগ্রেসের নেতৃত্ব দলীয় কর্মী ও সমর্থকদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। ওই অনুষ্ঠানে প্রচুর মানুষের ভিড় হয়,যা সমাবেশে পরিণত হয়।

 

অনুষ্ঠানে তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি অজিত মাইতি তার ভাষণে রাজ্য সরকারের উন্নয়নমূলক প্রকল্প গুলির সাফল্য তুলে ধরেন। সেই সঙ্গে তিনি বিজেপিকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেন। তিনি বলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বাড়ি বাড়ি লাশ খুঁজে বেড়াচ্ছেন ।তিনি বলেন দিলীপ ঘোষ বুধবার কেশপুরের খেতুয়াতে বলেছেন লাশ ফেলে দিবেন। তার জবাবে অজিত মাইতি বলেন দিলীপ ঘোষ লাশের কারবারি। তাই লাশ নিয়ে ব্যবসা করার জন্য লাশ খুঁজছেন।তিনি বলেন সংগ্রাম করে তৃণমূল কংগ্রেস এই জায়গায় উঠে এসেছে । তৃণমূল কংগ্রেস আজকে এই জায়গায় আন্দোলন করে এসেছে। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে দিলীপ ঘোষের মতো একটা অর্বাচীন মানুষের জবাব দিবে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার জনগণ। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় বিজেপির কোনো অস্তিত্বই থাকবে না ।

বিজেপি যেভাবে সন্ত্রাস সৃষ্টি করার চেষ্টা করছে রাজনৈতিকভাবে তৃণমূল কংগ্রেস তার মোকাবিলা করবে। তৃণমূল কংগ্রেস উন্নয়ন ও শান্তি চায়। কিন্তু বিজেপি জেলাজুড়ে সন্ত্রাসের বাতাবরণ তৈরি করছে তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীদের ওপর হামলা করছে। ধৈর্যের একটা সীমা রয়েছে। এখনো তৃণমূল কংগ্রেস-এর কর্মীরা সংযত রয়েছে, আইন হাতে তুলে নেয়নি। আমরা আমাদের কর্মীদের শান্ত থাকার নির্দেশ দিয়েছি। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় দিলীপ ঘোষের মতো মানুষের যোগ্য জবাব দেবে জেলার শান্তিপ্রিয় জনগণ। তিনি বলেন কেন্দ্রীয় সরকার বঞ্চনা করা সত্ত্বেও বাংলার উন্নয়নে রাজ্য সরকার কাজ করে চলেছেন। তা সত্ত্বেও বাংলার উন্নয়নকে স্তব্ধ করে দেওয়ার জন্য বিজেপি চক্রান্ত শুরু করছে । আর তাকে মদত দিচ্ছেন কেন্দ্রে থাকা বিজেপির নেতা মন্ত্রীরা। তিনি আরো বলেনযে অমিত শাহ যতবার রাজ্যেআসুক না কেন তাতে আমাদের কোন দুঃখ আসে না । উনি বেড়াতে এসেছেন আবার চলে যাবেন। ওরা বাংলার কোন দিনই ভাল চাননি। আগামী দিনের চাইবে না। ওরা বাংলাকে সোনার বাংলা গড়ার কথা বলছে আগে ওনারা উত্তরপ্রদেশকে সোনার উত্তরপ্রদেশ গড়ে তুলুক তারপরে কথা বলবেন। কারন বাংলা আগামী দিনে সারা ভারতবর্ষকে পথ দেখাবে। তাই বাংলার জননেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতার বন্দ্যোপাধ্যায় এর বিরুদ্ধে যতই কুৎসা অপপ্রচার করুক ণা কেন বাংলার মানুষ তার যোগ্য জবাব দিবেন।

 

তিনি বিজয়া সম্মিলনীর অনুষ্ঠানে দলীয় কর্মী ও সমর্থকদের বলেন আপনারা ভয় পাবেন না। ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতি বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে রাজ্য সরকারের সাফল্য তুলে ধরবেন এবং কেন্দ্রীয় সরকারের বাংলাকে বঞ্চনার কথা মানুষকে জানাবেন। জেলার মানুষ তথা রাজ্যের মানুষ তৃণমূলের পাশে রয়েছে আগামী দিনেও থাকবে। তাই বিজেপির হুমকিকে কোনভাবেই ভয় করবেন না বলে তিনি দলীয় কর্মীদের উদ্যেশ্যে বলেন। এভাবে অনেকেই হুমকি দেয় যাদের কোন কিছুই নেই । তারা হুমকি দিয়ে টিকে থাকতে চায়। তাই দলীয় কর্মী দের মাথা ঠান্ডা করে দলকে আরও শক্তিশালী করে তোলার জন্য তিনি কাজ করার আহ্বান জানান।

Related Articles

Back to top button
Close