fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

কোভিড রোগীদের স্বার্থে কালীপুজোয় বাজি ফাটাবেন না, আবেদন খোদ মুখ্যমন্ত্রীর

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: করোনা রোগীদের শ্বাসকষ্টের কথা বিবেচনা করে চলতি বছরে বাজি বন্ধের আবেদন জানিয়েছিলেন চিকিৎসকরা। এর প্রেক্ষিতে হাইকোর্টেও দায়ের হয়েছে মামলা। পালটা এই দাবির বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল আতসবাজি উন্নয়ন সমিতি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কোভিড রোগীদের কথা চিন্তা করে কালীপুজোয় বাজি না ফাটানোর জন্য আবেদন জানালেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী।
এদিন নবান্নে মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে বলেন, ‘কোভিড রোগীর পক্ষে বায়ুদূষণ মারাত্মক। তাই কালীপুজোয় বাজি ফাটাবেন না, মুখ্যমন্ত্রী এমনই আর্জি জানিয়েছেন। করোনা আবহে বাজি থেকে দূরে থাকুন।’ কালীপুজোয় বাজির বিষয় নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মুখ্য সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, রাজ্য পুলিশের ডিজি, কলকাতার পুলিশ কমিশনার-সহ নবান্নের শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,  কোভিড রোগীদের স্বার্থে এবারে কালীপূজায় বাজি ফাটানো বন্ধ রাখতে আবেদন জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। কালীপুজোর মণ্ডপের চারপাশও যেন খোলা থাকে। পুলিশের সঙ্গে কথা বলেই কালীপুজো বিসর্জন করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দুর্গাপূজার মত কালীপুজাতেও বিসর্জনে কোনও শোভাযাত্রা চলবে না। সকলকে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। তিনি মনে করিয়ে দেন, ‘দুর্গাপুজোয় পর রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়েনি। রাজ্যে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যাও বাড়েনি। এই ট্রেন্ড ধরে রাখতে হবে।’
 এ দিনের বৈঠকে আলাপনবাবু পরিষ্কার করে বলেন, “আদালত নির্দেশিত নিষিদ্ধ বাজি তো বটেই, দয়া করে কেউ কোনওরকম বাজি ব্যবহার করবেন না। কোভিড রোগীদের শরীরে বাজির ধোঁয়া থেকে মারাত্মক প্রভাব পড়তে পারে। তাই উৎসব সংযত এবং শান্তভাবে পালিত হবে।” তবে যদি কেউ লুকিয়ে চুরিয়ে বাজি কেনে এবং ফাটায়, তার বিরুদ্ধে কি কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হবে? জানানো হয়েছে, শহর বা রাজ্যের কোথাও যাতে বাজি বিক্রি বা তৈরি না হয় সেদিকে কড়া নজর রাখবে পুলিশ। বেনিয়ম দেখলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button
Close