fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

১ ডিসেম্বর থেকে দুয়ারে দুয়ারে সরকার: মুখ্যমন্ত্রী

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ২০১৯-এর লোকসভা ভোটে গেরুয়া শিবির জঙ্গলমহলের প্রায় সব আসনই দখল করে। তার পর থেকেই রাজ্য সরকার জমি পুনরুদ্ধারে ঝাঁপিয়ে পড়েছে। সোমবার খাতরায় একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধন এবং শিলান্যাস করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মঞ্চে উঠেই জানিয়ে দেন, আগামী বছর থেকে বিরসা মুণ্ডার জন্মদিনে রাজ্যে ছুটি থাকবে। অমিত শাহ যে মূর্তিতে মালা দিয়েছিলেন তা আদৌ বিরসা মুণ্ডার কিনা কেউ কেউ প্রশ্ন তুলেছিল। এদিন বাঁকুড়ার সভা থেকে মমতা বলেন, ‘এখানকার মানুষ বলছে ওটা বিরসা মুণ্ডার মূর্তি নয়। ওটা শিকারির মূর্তি। সে যাক, শিকারিকেও আমরা সম্মান করি’। এর পরই বিরসা মুণ্ডার জন্মদিনে ছুটি ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, গুরু নানকের জন্মদিনে ছুটি হয়, ইদের ছুটি হয়, করণ পুজোর ছুটি হয়, দুর্গা পুজোর ছুটি হয়, এ বার বিরসা মুণ্ডার জন্মদিনেও ছুটি থাকবে। এরপর খাতরার সভা থেকে তিনি বলেন, ‘১ ডিসেম্বর থেকে দুয়ারে দুয়ারে  সরকার। বিভিন্ন জায়গায় ক্যাম্প হবে। লক্ষ লক্ষ বেকার তৈরি করেছে কেন্দ্র।

তিনি আরও বলেন, ‘এই ক্যাম্প ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত সরকার চলবে। সকাল ১১টা থেকে দুপুর ৩টে পর্যন্ত ক্যাম্প চলবে। আজ ১২০০ মানুষের কাছে পরিষেবা দেওয়া হবে। প্রতিটি ব্লকে ব্লকে ক্যাম্প হবে। মানুষের কাছে সরাসরি সরকারি সুবিধা। রাজ্যের চাকরির বয়সসীমা বেড়েছে। আমরা বেকারত্বের হার ৪০% কমিয়েছি। বাংলায় কারও পেনশন বন্ধ হয়নি। কেন্দ্রীয় প্রকল্পে মানুষ কাজ হারিয়েছেন। কেন্দ্রের ভাঁওতা মানুষ বুঝে গিয়েছে। জঙ্গলমহলে ১০ হাজার কনস্টেবল চাকরি পেয়েছে। বাঁকুড়ায় ৩২ হাজার পরিযায়ী কাজ পেয়েছেন।’

 

তিনি বলেন, জুন অবধি বিনা পয়সায় চাল। আমরাই সরকার গড়ব।হাতির হানায় মৃত্যু হলে পরিবারের একজনকে হোমগার্ডের চাকরি ও ৪ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিচ্ছে সরকার। মাওবাদী হামলায় যাঁরা নিখোঁজ, ১০ বছরেও যাঁদের কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি, যাঁরা ফিরে আসেননি, তাঁদের পরিবাররাও পুলিশের কাছে দরখাস্ত করবেন। যারা শুধু পুরোহিতবৃত্তি করে সংসার চালান, তাঁদের ‘পুরোহিত কল্যাণ’ ভাতা হিসেবে বর্তমানে ১০০০ টাকা করে দেওয়া হচ্ছে। পরবর্তীতে এটাকে বাড়িয়ে ২০০০ টাকা করা হবে।

 

Related Articles

Back to top button
Close