fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মানিকপুরে মোটা কালীপুজো নিয়ে দেখা দিয়েছে সংশয়, এলাকায় উত্তেজনা

সুদর্শন বেরা, পশ্চিম মেদিনীপুর: অর্ধ শতক পেরোনো মেদিনীপুর শহরের মানিকপুরে মোটাকালী পুজা হওয়া নিয়ে এবছর দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা। মেদিনীপুরের মানিকপুর এলাকার সার্বজনীন কালীপুজো মোটা কালী নামেই পরিচিত, ১৩ ফুট উচ্চতার ৫ ফুট চওড়া কালী প্রতিমা দেখতে প্রতি বছর মানুষ উত্সুক হয়ে থাকেন। এতবড় প্রতিমা বিসর্জনের সমস্যা থাকায় গরুর গাড়ির উপরেই প্রতিমা গড়া হয়। পুজো শেষ হলে সেই গরুর গাড়ি টেনে নিয়ে যাওয়া হয় নদী ঘাটে।

পুজো কমিটির সম্পাদক অসিত দাস জানান, ব্রিটিশ আমলে পুজো হলেও দেশ স্বাধীনের পর পুজো বন্ধ হয়ে যায়। ১৯৬৯ সালে পুনরায় পুজো শুরু হয়। গত ৫২ বছর ধরে যেখানে মোটাকালীর পুজো হয়ে আসছে সেটি ঘোষেদের জায়গা। এবছর ঘোষ পরিবার সেই জায়গা প্রাচীর দিয়ে ঘিরে দিয়েছেন। যদিও আগের স্থানেই প্রতিমা গড়ার কাজ শুরু হয়ে গেছে। এবছর পুজো করতে পারবেন কিনা তা নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যেই রয়েছেন উদ্যোক্তারা। তাঁরা প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছেন। জমির মালিক বিশ্বরূপ ঘোষ জানান, এটা তাঁদের জমি, তারা চান না আর সেখানে পুজো হোক। পুজো করার বিষয়ে সমাধান সূত্র বেরিয়ে আসার জন্য দুপক্ষকে নিয়ে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে কোতয়ালী থানার পুলিশ।

 

যদিও আজও কোনো সিদ্ধান্তে পৌছাতে পারেনি পুলিশ প্রশাসন। অর্ধ শতক পেরানো মেদিনীপুরের মানিকপুর এলাকার মোটা কালী পুজো গড়তে বাধা দিতে গিয়ে এলাকার মানুষের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হলো পুলিশকে। পুজো কমিটির সম্পাদক অসিত দাস জানান, ৫২ বছর ধরে ঘোষ পরিবারের মাঠেই পুজো হয়ে আসছে।  প্রয়াত তারকনাথ ঘোষ , অমলকৃষ্ণ ঘোষের জমিতেই পুজো হয়ে আসছে। পুজোর দিনগুলিতে তাঁরা মাঠের কিছুটা স্থান ব্যবহার করেন।  এবছর ঘোষ পরিবারের বর্তমান সদস্যরা তাঁদের জমিতে পুজো করতে দিতে রাজি হচ্ছেন না। জমি ব্যবহার করার জন্য পুজো কমিটি এবং এলাকার মানুষ টাকা দিতেও রাজি। তাতেও তাঁরা রাজি নন।

জমির অংশীদার বিশ্বরূপ ঘোষ বলেন তাঁরা পুজোর জন্য তাঁদের জমি ব্যবহার করতে দেবেন না। পুজোর আর বেশিদিন বাকি নেই। বৃহস্পতিবার প্রতিমা গড়ার কাজ চলার সময় পুলিশ গিয়ে তা বন্ধ করে দেয় । এরপর এলাকার কয়েকশ মানুষ গিয়ে পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ চলে। পুলিশের বাধা উড়িয়েই প্রতিমা গড়ার কাজ চলতে থাকে। এনিয়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। যার ফলে মেদিনীপুর শহরের মানিকপুর এলাকার মোটা কালী পুজো নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে।ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।তবে কোতোয়ালী থানার পুলিশ আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টির সমাধান করার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

Related Articles

Back to top button
Close