fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

শিলিগুড়িতে ফের করোনা আক্রান্ত হয়ে বৃদ্ধের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিনিধি, শিলিগুড়ি:  শিলিগুড়িতে আবার করোনা আক্রান্ত হয়ে এক ব্যক্তির মৃত্যু হল। উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত ওই ব্যক্তি শিলিগুড়ি পুরসভার ১০ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা। মঙ্গলবার রাতে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে দেখেন রাস্তাতেই তার মৃত্যু হয়েছে।

 

 

করোনা উপসর্গ থাকা এবং করোনা প্লরোটোকল মেনে এ ধরনের মৃত্যুতে করো না পরীক্ষা করা বাধ্যতামূলক। সেই নিয়মে মৃত ব্যক্তির লালারসের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। বুধবার সেই রিপোর্ট আসতে জানা যায় ব্যক্তির দেহে করোনা  সংক্রমণ ছিল। ফলে মৃতদেহ পরিবারের হাতে দেওয়া হয়নি। সরকারি উদ্যোগে সাবধানতার সঙ্গে সাহুডাঙি শ্মশান ঘাটে মৃতদেহ সৎকার করা হয়। এদিকে শহরের প্রাক্তন মেয়র পুরসভার প্রশাসক চেয়ারম্যান অশোক ভট্টাচার্য সহ আরো প্রায় ১৫ জন শহরের বাসিন্দার দেহে করোনা সংক্রমন ধরা পড়েছে বলে স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে।

 

 

এদিকে করোনা সংক্রমণ বেড়ে চলায় প্রশাসন শহরের বাজারগুলির উপর নিয়ন্ত্রণ ও নজরদারিতে বাড়তি গুরুত্ব দিয়েছে। রেগুলেটেড মার্কেটের পর এদিন থেকে চম্পাসারি বাজারও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি শহরের চারটি ওয়ার্ডে বিশেষ নজর দেওয়া হয়েছে। প্রথমে ৪৫, ৪৬ নম্বর ওয়ার্ড থেকেই শহরে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে। তারপর একে একে, ২০, ২৫,১৮, ৪০ সহ বহু ওয়ার্ডে করোনা  সংক্রমণ শুরু হয়েছে। এদিকে ১০নম্বর ওয়ার্ডের ৭২ বছরের বাসিন্দার মৃত্যুতে তার পরিবারের তরফে শহরের  কিছু নার্সিংহোমের বিরুদ্ধে অমানবিকতার অভিযোগ তোলা হয়েছে। তারা জানিয়েছেন,  ওই ব্যক্তির শ্বাসকষ্ট দেখা দেওয়ায় তারা প্রথমে সেবক রোডের একটি নার্সিংহোমে নিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু করোনা উপসর্গ থাকায় সেই নার্সিংহোম ফিরিয়ে দেয়। সেখান থেকে আরও কয়েকটি নার্সিংহোমে ঘুরে ভর্তি করাতে না পেরে তারা অবশেষে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে যান। সেখানে যাওয়ার পথেই ব্যক্তির মৃত্যু হয়। পরিবারের বক্তব্য,  কোনও একটি নার্সিংহোম চিকিৎসা শুরু করলে তাদের প্রিয়জনকে এভাবেই হারাতে হতো না।

Related Articles

Back to top button
Close