fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আমফান-এর জেরে পাট ও ধান চাষের ব্যাপক ক্ষতি, মাথায় হাত চাষিদের 

কৌশিক অধিকারী, বহরমপুরঃ শিল্পবিহীন জেলা হিসেবে পরিচিত মুর্শিদাবাদ, ফলে একমাত্র কৃষি নির্ভর উপর জিবিকা নির্ভর করে চাষীরা। একদিকে প্রায় দুই মাস ধরে করোনা ভাইরাস আতঙ্কের জেরে লক ডাউন আর অন্যদিকে হঠাৎ আমফান ঘূর্ণিঝড়। ফলে মরার উপর খারার ঘা, বুধবার মধ্যরাতে আমফান দাপটে বিপর্যস্ত মুর্শিদাবাদ জেলা।

মুর্শিদাবাদ জেলার উপর দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে এই ঘূর্ণিঝড়। মুর্শিদাবাদ জেলাতে সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ধান ও পাট চাষ। জেলার বেলডাঙা থেকে কান্দি সহ সমস্ত ব্লকে চাষের ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

প্রান্তিক চাষী বিপ্লব মন্ডল জানান, একদিকে লক ডাউনের সমস্যা, অন্যদিকে গোটা বছরের শেষ সম্বল চাষ। বিভিন্ন মহাজন কাছে ঋন নিয়ে ধান চাষ ও পাট চাষ করেন চাষীরা, কিন্তু লক ডাউন সহ আমফান ঘুর্নিঝড় জেরে যে ক্ষতি হল মুর্শিদাবাদ জেলা জুড়ে তা নিয়ে চিন্তা ভাঁজ পরেছে চাষীদের আগামী দিনে কিভাবে সংসার চালানো হবে তাই নিয়ে দুশ্চিন্তা দিন কাটাচ্ছেন এই ক্ষতিগ্রস্ত চাষিরা।

মুর্শিদাবাদ জেলা কৃষি আধিকারিক জানান, এই আমফান এর জেরে জেলার অধিকাংশ ফলনের ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমরা বিভিন্ন ব্লকে প্রতিনিধি পাঠিয়েছি ক্ষতির পরিমাণ দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি। একদিকে লকডাউন, অন্যদিকে আমফান ঘূর্ণিঝড়। ক্ষতির মুখে দাঁড়িয়ে রয়েছেন মুর্শিদাবাদ জেলার এই কৃষকরা। ফলে সরকারী সাহায্য দাবি করেছেন এই চাষীরা।

Related Articles

Back to top button
Close