fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনার জের, বীরভুমের বেলিয়া গ্রামের প্রসিদ্ধ ধর্মরাজের মেলা এবার বন্ধ থাকছে

সুব্রত মুখোপাধ্যায়, সাঁইথিয়া: করোনা আবহে এবার বীরভুম জেলার বেলিয়া বা বেলে গ্রামের প্রসিদ্ধ ধর্মরাজের মেলা এবার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিলেন ওই গ্রামের মেলা পরিচালন সমিতি। বর্ধমান রামপুরহাট লাইনে আমোদপুর স্টেশন থেকে পাঁচ ছয় কিলোমিটার দুরত্বে বেলেগ্রামের ধর্মরাজ মন্দির সংলগ্ন পুকুরের মাটি বাতের রোগ উপশমকারী হিসাবে ব্যবহার হয়। আষাঢ় মাসের প্রত্যেক শনি ও রবিবার বিরাট আকারে মেলা হয়। প্রত্যেক বছর রাজ্যের হাজার হাজার মানুষ ভীড় করেন এই মেলাতে। ধর্মরাজের পুকুরের মাটি মেখে স্নান করে ভক্তরা মন্দিরে পুজো দেন। বহুবছর থেকে এই বিশ্বাস রয়ে গিয়েছে মানুষের মনে। ভোর থেকে প্রস্তুতি নিয়ে দুরদুরান্ত থেকে ট্রেন বাস ধরে এখানে স্নান করে পুজো দিয়ে মাটি ও বাতের তেল সংগ্রহ করে সেদিনই বাড়ি ফিরে যায়।

আরও পড়ুন: সরকারি বাড়ি তৈরির অনুদানের তালিকায় হিমঘর মালিক থেকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক

এ বছর দিনদুয়েক আগে এক পরিবার মুর্শিদাবাদের জঙ্গিপুর থেকে ধর্মরাজের পুজো দিতে এসেছিলেন। ওই পরিবারের এক বছর ষাটের মহিলা হঠাৎ শ্বাসকষ্টে মারা যান মন্দিরে। গ্রামের মানুষের সন্দেহ করোনা রোগেও মৃত্যু হতে পারে ওই মহিলার। তারপরই গ্রামবাসী বাঁশ আটকে বেলে গ্রাম প্রবেশের রাস্তা বন্ধ করে দেয়। এরপর আলোচনা করে এ বছরের মেলা স্হগিতের সিদ্ধান্ত নেন।

বেলে গ্রামের ধর্মরাজ মন্দিরের পুজারী কিশোর দেবাংশী বলেন, যদিও সারা বছর ধরে আমরা এই আষাঢ় মাসে ধর্মরাজের মেলার দিকে তাকিয়ে থাকি কিছু বাড়তি রোজগারের আশায়, কিন্তু এই করোনা আবহে দুর থেকে আসা হাজার হাজার মানুষ ও এলাকার মানুষের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে মেলা বন্ধের সিদ্ধান্ত নিলাম। কোটাসুরের চন্দন ঘোষ জানালেন, দাদুর পায়ে বাতের ব্যাথার জন্য ভেবেছিলাম বেলে গ্রাম নিয়ে যাব ওনাকে, কিন্তু এবার পুজো ও মেলা হচ্ছে না খবর পেয়ে হতাশ লাগছে। তবে মানুষের নিরাপত্তা সবার আগে।

Related Articles

Back to top button
Close