fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

প্রবল বৃষ্টির জেরে কান্দির বিভিন্ন এলাকা জলমগ্ন, গৃহবন্দী ১০০ টি পরিবার

কৌশিক অধিকারী, কান্দি: মুর্শিদাবাদের কান্দি মহকুমা বন্যা কবলিত এলাকা হিসেবে পরিচিত। শ্রাবণ মাসের প্রবল বৃষ্টির জেরে কান্দি ব্লকের আন্দুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার চাঁদনগর সহ একাধিক গ্রামে জলবন্দি হয়ে পড়েছেন প্রায় ১০০টি পরিবারের সদস্যরা।

রবিবার সকাল থেকেই গ্রামে জল ঢুকতে শুরু হতেই এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনার খবর পেয়ে বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শণ করেন কান্দি পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি পার্থ প্রতিম সরকার সহ ব্লক প্রশাসনিক আধিকারিকরা।

[আরও পড়ুন- কোভিড আক্রান্তকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে দিল না পরিবারের সদস্যরা!]

মুর্শিদাবাদ জেলার কান্দি মহকুমা নদীমাত্রিক মহকুমা বলে পরিচিত। প্রবল বৃষ্টি হতেই একদিকে ম্যাসেনজোর অন্যদিকে তিলিপাড়া ব্যারেজ থেকে জল ছাড়ার ফলে কান্দি মহকুমা অন্তর্গত কান্দি ব্লকের নদী তীরবর্তী বেশ কিছু গ্রাম জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। কান্দি ব্লকের আন্দুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের চাঁদনগর, হিজল গ্রাম পঞ্চায়েতের একাধিক জায়গা সহ চাষের জমি ও এলাকা প্লাবিত হয়ে গিয়েছে। যার জেরে গৃহবন্দী হয় পড়েছেন প্রায় একশো পরিবার। রবিবার সকালে বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শণ করেন কান্দি পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি পার্থ প্রতিম সরকার। পার্থ প্রতিম সরকার জানান, বন্যা পরিস্থিতি তৈরী হলেও আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। ব্লক প্রশাসন এবং গ্রাম পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে নজর রাখা হচ্ছে। আমরা জেলা প্রশাসনকে জানিয়েছি এবং বন্যা পরিস্থিতি জেরে কোনও মানুষের সমস্যা যাতে না হয় তার দিকেও নজর রাখা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

কান্দি মাষ্টার প্ল্যানের জন্য ২০১২ সালের ২৬শে ফেব্রুয়ারি তৎকালীন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী প্রণব মুখোপাধ্যায় এই মাষ্টার প্ল্যান ঘোষনা করেন। কেন্দ্রীয় বাজাটে ৪৩৯  কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়। বর্তমানে সেই কাজ ৯০ শতাংশ প্রায় সম্পন্ন। ফলে বন্যার হাত থেকে অনেকটাই রক্ষা পাচ্ছে কান্দি মহকুমা বন্যা।

 

Related Articles

Back to top button
Close