fbpx
কলকাতাপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ট্রাক ধর্মঘটের ফলে নতুন করে চাপে পড়তে চলেছে আম মধ্যবিত্ত

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: রাজ্য জুড়ে তিন দফা দাবিতে আগামী সোমবার থেকে বুধবার পর্যন্ত চলবে ট্রাক ধর্মঘট। আর তাতেই এবার মাথায় হাত পড়তে চলেছে আম জনতার। সাধারণত ট্রাকের মাধ্যমেই ভিন রাজ্য থেকে পণ্য সরবরাহ হয়ে থাকে।
কিন্তু ট্রাক ধর্মঘটের ফলে বিপর্যস্ত হবে সাধারণ জনজীবন। কারণ এই ট্রাকের মাধ্যমে প্রত্যেকদিন নিত্যপ্রয়োজনীয় ও অত্যাবশ্যকীয় দ্রব্য সরবরাহ হয়ে থাকে।
১২ থেকে ১৪ অক্টোবর রাজ্য জুড়ে টানা ৭২ ঘণ্টা ট্রাক ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে ফেডারেশন অফ ওয়েস্ট বেঙ্গল ট্রাক অপারেটার্স অ্যাসোসিয়েশন। তাঁদের দাবি, রাজ্যে অতিরিক্ত এক্সেল লোড চালু করতে হবে এবং ওভারলোডিং বন্ধ করতে হবে। অন্য রাজ্যে এক্সেল লোড চালু করা হয়েছে। এই রাজ্যে কেন্দ্রের মোটর ভেহিক্যালসের নিয়ম মেনে তা চালু করা হয়নি।
দীর্ঘদিন ধরেই তাঁরা এই বিষয়ে রাজ্য সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করেছেন। একপ্রকার বাধ্য হয়েই পুজোর মরসুমে তাঁরা ধর্মঘটের পথে হাঁটলেন।
এছাড়াও তাঁদের অভিযোগ, রাজ্য জুড়ে ট্রাক মালিক ও চালকদের ওপরে প্রশাসনিক হয়রানি এবং জুলুমবাজি বন্ধ করতে হবে। বিভিন্ন সময়ে কখনও পুলিশ, কখনও মোটর ভেহিক্যালসের কর্মীরা অনৈতিক জুলুমবাজি চালান, অবিলম্বে তা বন্ধ করতে হবে। পাশাপাশি সংগঠনের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, করোনাকালে রোড ট্যাক্স, পারমিট এবং ফিটনেসের ক্ষেত্রেও ছাড় দিতে হবে।
রাজ্যজুড়ে সোমবার থেকে শুরু হতে চলা টানা ৭২ ঘণ্টা ট্রাক ধর্মঘটে রাজ্যের বিভিন্ন সীমান্তে আটকে যাবে হাজার হাজার ট্রাক। পাশাপাশি ভিন রাজ্যের লরিও ঢুকতে বাধা দেওয়ার জেরে রাজ্যে নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর সঙ্কট সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এর ফলে ওড়িশা, তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশ, দিল্লি, বিহার থেকে সবজি, মাছ, ডিম, ওষুধ সামগ্রী ঢুকতে পারবে না রাজ্যে।
এর ফলে আবারো মূল্য বৃদ্ধির আশঙ্কা থাকছে। পুজোর মরশুমে নতুন করে মূল্যবৃদ্ধি মধ্যবিত্ত বাঙালি কে সমস্যায় ফেলবে। সংগঠনের হুঁশিয়ারি, রাজ্য দাবি না মানলে পুজোর পর সাড়ে রাজ্য জুড়ে ৬ লাখ ট্রাক কাজ করা বন্ধ করে দেবে। পুজোর পরে লাগাতার ট্রাক ধর্মঘট চলবে। তাই তাঁদের দাবি, অবিলম্বে মুখ্যমন্ত্রীকে আলোচনায় বসতে হবে।

Related Articles

Back to top button
Close