fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

পুলিশের কড়া নজরদারিতে, সাপ্তাহিক চতুর্থ সপ্তাহের লকডাউনে দিনহাটায় বন্ধ থাকল দোকানপাট

জেলা প্রতিনিধি, দিনহাটা: সাপ্তাহিক এই লকডাউনের চতুর্থ সপ্তাহে বৃহস্পতিবার পুলিশি কড়া নজরদারির ফলে দিনহাটায় হাট-বাজার দোকানপাট সবই ছিল বন্ধ। করোনা প্রতিরোধে সরকারিভাবে লকডাউনকে সফল করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নানাভাবে সচেতনতা প্রচার চালান হয়।

লকডাউন চলাকালীন দিনহাটার বিভিন্ন এলাকায় এদিন সকাল থেকেই অনেকেই বিভিন্ন অজুহাতে বাইক নিয়ে বেরিয়ে পড়েন। পুলিশ তাদের আটকালে কেউ হাসপাতালে যাওয়ার, কেউবা আবার পুরনো একটি প্রেসক্রিপশন দেখিয়ে ওষুধ আনতে যাচ্ছেন বলে জানিয়ে পার পাওয়ার চেষ্টা করেন।  পুলিশি নজরদারি  অনেকটাই কড়াকড়ির  ফলে  আটকে দেওয়া হয় তাদের। লকডাউনের মধ্যেও কোনরকম কারন ছাড়াই বাইক নিয়ে অনেকেই চলাচল করলেও পুলিশি তৎপরতায় আটক করা ছাড়াও তাদের বিরুদ্ধে পুলিশ কেস দেয়। প্রেসক্রিপশন দেখতে চাইলে হিমশিম খেয়ে যান অনেকেই। পুরনো প্রেসক্রিপশন দেখে পুলিশ নানাভাবে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করলে সঠিক উত্তর দিতে না পারায় শেষরক্ষা হয়নি তাদের।

পুলিশি জেরায় আটকে পড়েন তারা অনেকেই। এদিন দিনহাটা শহর ছাড়াও মহকুমার বিভিন্ন এলাকা থেকে পুলিশ ৪০টি মোটরবাইক আটক করে পুলিশ। দিনহাটা থানার এসআই বিমান সরকার, দীপক রায়, ট্রাফিক ওসি প্রকাশ দাস প্রমুখ পুলিশ আধিকারিকরা ছাড়াও মহকুমার অন্যান্য থানা এলাকাতেও নানাভাবে নজরদারি বাড়ানো হয়। পুলিশি নজরদারি ফলে বিভিন্ন এলাকায় বাইক চালকদের আটক করা ছাড়াও  তাদের বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট ধারায় কেস দেওয়া হয়। এদের অনেকেরই ছিল না যেমন হেলমেট তেমনি হেলমেট থাকলেও ছিলনা গাড়ির কাগজপত্র বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

করোনা মোকাবিলায় লকডাউনকে সফল করে তুলতে এদিন পুলিশের কড়া নজরদারির  ফলে ধীরে ধীরে বাইকের চলাচল অনেকটাই কমে আসে।

দিনহাটা মহকুমা পুলিশ আধিকারিক মানবেন্দ্র দাস বলেন, লকডাউনকে সফল করতে বিভিন্ন এলাকায় নজরদারি বাড়ানো হয়। পাশাপাশি বেশকিছু মোটরবাইক আটক করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close