fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মদ বিরোধী আন্দোলন ঘিরে উত্তপ্ত পূর্ব মেদিনীপুর, পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত একাধিক

মিলন পণ্ডা, মারিশদা (পূর্ব মেদিনীপুর) : রণক্ষেত্র চেহারা নিল পূর্ব মেদিনীপুর। জানা গিয়েছে, পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি ৩ ব্লকের মারিশদা ভাজাচাউলি-দেবেন্দ্র গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যস্থল এলাকায় মদ বিরোধী আন্দোলনকে কেন্দ্র করে রণক্ষেএের চেহারা নিল গোটা এলাকা। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই  রাজনৈতিক দলের মধ্যে চাপানউতোর তৈরি হয়েছে।

সোমবার দুপুরে গ্রামের প্রমিলা বাহিনী সঙ্গে  সরকারি অনুমোদন প্রাপ্ত মদের দোকানের নেতৃত্বের কতিপয় দুষ্কৃতীদের সংঘর্ষে উত্তপ্ত হল গোটা এলাকায়। সংঘর্ষের জেরে আহত একাধিক গ্রামের প্রমিলারা। ঘটনার পর গোটা এলাকা রণক্ষেত্রে চেহারা নেয়। এদিকে ঘটনার সামাল দিতে ঘটনার হাজির হয় মারিশদা থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পারেনি পুলিশ। পরিস্থিতি আরও অগ্নিগর্ভ হতে থাকে। সামাল দিতে হাজির হয় মারিশদা থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী।

 

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি ৩ ব্লকের মারিশদা ভাজাচাউলি ও দেবেন্দ্র গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যস্থলে এলাকায় পিচ রাস্তা ও খালের সংলগ্ন এলাকায় একটি সরকারি অনুমোদিত মদের দোকান রয়েছে। ওই মদের দোকানে মদ্যপান করে পথ চলতি মহিলা ও মানুষদের উদ্দোশ্যের কটুক্তি ও নানা অঙ্গভঙ্গি করে মদ্যাপানকারীরা । এদিকে এলাকায় মদের দোকান ঘিরে এলাকায় অতিষ্ঠ ছিল দুই গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দারা। ওই দোকান বন্ধের দাবিতে আন্দোলনে নামেন এলাকার প্রমিলা বাহিনীরা। দিন কয়েক ধরে এলাকায় বাসিন্দারা মদ দোকান বন্ধের দাবিতে আন্দোলনে নামেন৷ দুই গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দারা র‍্যালি করে আন্দোলনে নামেন প্রমিলা বাহিনীরা।

 

সোমবার দুপুরে ওই মদের দোকানের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় কয়েকজন দুষ্কৃতী মদ বিরোধী আন্দোলন কারীদের ওপর হামলা চালায় অভিযোগ। ঘটনায় বেশ কয়েক গুরুতর জখম হন। গ্রামের মহিলারা লাঠি হাতে ছুটে আসেন। দুষ্কৃতীদের সঙ্গে মহিলাদের সংঘর্ষ লেগে যায়। সংঘর্ষের ফলে আরও  বেশ কয়েকজন গুরুতর জখম হন। ঘটনার খবর পেয়ে হাজির হয় মারিশদা থানার পুলিশ। পড়ে পুলিশ ও জনতার মধ্যে  খণ্ডযুদ্ধ বেঁধে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে ঘটনার স্থলে ছুটে আসে বিশাল পুলিশ বাহিনী। অবশেষে বাসিন্দাদের বুঝিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

 

আন্দোলন কারী এক যুবতী বিতস্ত মণ্ডল বলেন, আমি কলেজ ছাএী। এই রাস্তা দিয়ে প্রত্যেকদিন যাতায়াত করতে হয়৷ এইভাবে কটূক্তির শিকার হচ্ছি। তিনি আরও বলেন একটি মারুতি গাড়ি করে তিন মদ্যপ যুবক জোর করে গাড়িতে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন৷ মদ বিরোধী আন্দোলনে প্রতিবাদ করায় বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে হুমকি দিচ্ছে। যারা প্রতিবাদ করছে তাদের বাড়ির মেয়েকে তুলে নিয়ে এসে অত্যাচার করা হবে। এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা রুম্পী মণ্ডল বলেন, মদ্যাপ অত্যাচারে স্কুল ও কলেজ যেতে পারছেন না ৷ বিকাল ৫টার সময় রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় এক মদ্যপ যুবক বলে টাকা নিয়ে আমার সঙ্গে চলে এসো।

 

কাঁথি সংগঠনীক জেলার বিজেপি সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী বলেন, তৃণমূল একটি বেলেল্লাপনা দল । সাধারন মানুষ মদ বিরোধী আন্দোলনে নেমেছে। মাতৃ শক্তিতে বিরোধিতা করছে তৃণমূলের হার্মাদরা। মেয়েদের উপর নির্মম ভাবে অত্যাচার চালাচ্ছে। মানুষ এর যোগ্য জবাব দেবে। সমন্ত অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারন সম্পাদক কনিস্ক পণ্ডা বলেন, বিজেপি ইচ্ছাকৃত ভাবে রাজনৈতিক রং দেওয়ার  চেষ্টা চালাচ্ছে। কোথাও মদ খেয়ে গণ্ডগোল করছে সেখান তৃণমূল করাচ্ছে বলে অভিযোগ করছে। পুলিশ তার আইনী ব্যবস্থা গ্রহন করবে। আমাদের কিছু ব্যাপার নেই৷ কনিস্কবাবু আরও বলেন বিজেপি মদ খেয়ে কোথায় পড়ে যাচ্ছে, কোথাও মদ খেয়ে মৃত্যু হচ্ছে। এই সব নিয়েই বিজেপির লড়াই। মারিশদা থানার ওসি অমিত দেব বলেন পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। এলাকায় পুলিশি টহল চলছে। এখনো পর্যন্ত কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি।

Related Articles

Back to top button
Close