fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

পুলিশ জনতা খণ্ডযুদ্ধে উত্তপ্ত পটাশপুর

ভীষ্মদেব দাশ, খেজুরি (পূর্ব মেদিনীপুর): তৃণমূল নেতারা দুর্ণীতি করছে, এমনই অভিযোগ তুলে পথে নামলেন খেজুরির বাসিন্দারা। দীর্ঘসময় ধরে পথ অবরোধ করেন বিক্ষুব্ধরা। এগরা- বাজকুল রাজ‍্য সড়কের মতিরামপুরে অবরোধ তুলতে পথে নামেন পটাশপুর থানার পুলিশ। তারপরই শুরু হয় পুলিশ-জনতা খন্ড যুদ্ধ।

শুক্রবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পটাশপুর এমনই ঘটনার সাক্ষী থাকল। আমফানের ক্ষতিপূরণ ও স্বজন পোষনের অভিযোগে বেকায়দায় নেতারা।পটাশপুর-১ নম্বর ব্লকের মতিরামপুর এলাকায় শুক্রবার রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখালেন গ্ৰামের বাসিন্দারা। বিক্ষুব্ধ জনতাদের দাবি, ত্রিপল চেয়েও মেলেনি অনেক গ্রামবাসীর। কিন্তু পাকাবাড়ি থাকা সত্ত্বেও ত্রিপল পেয়েছেন তৃণমূল ঘনিষ্ঠ অনেকেই। এই ঘটনার খবর পেয়ে পটাশপুর-২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি চন্দন সাউ ঘটনাস্থলে যান। বিক্ষোকারীরা চন্দন বাবুকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। এরপর পটাশপুর থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী ও এগরা মহকুমা পুলিশ আধিকারিক সেখ  আকতার আলি ঘটনাস্থলে এলে পুলিশের সঙ্গে খন্ডযুদ্ধ সৃষ্টি হয় এলাকার বাসিন্দাদের।এরপর পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিচার্জ করে। তবে এই ঘটনার জেরে বেশকয়েকজন বিক্ষোভকারী ও পুলিশকর্মী আহত হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। পটাশপুর-২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি চন্দন সাউ বলেন, বিজেপির লোকজন চক্রান্ত করে সাধারণ মানুষকে ভুল বুঝিয়েছে। তৃণমূলের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ মিথ্যা। তৃণমূল সর্বদা মানুষের পাশে আছে। বিজেপির কাঁথি সাংগঠনিক জেলা সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী বলেন, রাজ্যব্যাপী তৃণমূল নেতা নামক হার্মাদদের দুর্ণীতি চলছে। সাধারণ মানুষকে চুপ করানো যায় না। বিজেপি কাউকে উষ্কানি দেয়নি। দুর্ণীতি হয়েছে বলেই মানুষ ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

Related Articles

Back to top button
Close