fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

৩০ জুলাই পর্যন্ত বন্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, নতুন শিক্ষাবর্ষ নিয়ে সিদ্ধান্ত এখনও অধরা

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: নতুন শিক্ষাবর্ষ নিয়ে সিদ্ধান্ত এখনও অধরা। ৩০ জুলাই পর্যন্ত বন্ধ থাকবে সব কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলি। শনিবার ওকাকুরা ভবনে উপাচার্যদের সঙ্গে বৈঠকের পর এমনটাই জানান শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। যদিও স্কুল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত আগেই নেওয়া হয়েছিল। তবে উচ্চ মাধ্যমিকের পরীক্ষায় কোন রদবদল হওয়ার সম্ভবনা নেই। পাশাপাশি মাধ্যমিক পরীক্ষার ফল আগস্টে ঘোষনা হতে পারে তেমনটাই ইঙ্গিত মিলেছে শিক্ষামন্ত্রীর কাছ থেকে।

করোনার সংক্রমণের জন্য জুলাই মাসে খুলছে না স্কুল। যদিও পূর্বনির্ধারিত দিন অনুযায়ী উচ্চমাধ্যমিকের পরীক্ষা গুলি হবে। শনিবার উপাচার্যদের সঙ্গে শিক্ষা দফতরের বৈঠকের পর এমনটাই জানিয়ে দিলেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। পাশাপাশি নতুন শিক্ষাবর্ষ চালু নিয়ম আপাতত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলেও এদিন পরিষ্কার করলেন তিনি। একই সঙ্গে ৩১ জুলাই এর মধ্যে কলেজের তৃতীয় বর্ষের পড়ুয়াদের পরীক্ষা নিয়ে তার ফলাফল প্রকাশ করে দিতে হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

রাজ্যজুড়ে করোনা পরিস্থিতি ও আমফানের জন্য কিভাবে স্বাস্থ্যবিধি কে বজায় রেখে পঠন-পাঠন চালিয়ে যাওয়া যায় তাই নিয়ে এদিন উপাচার্যসহ শিক্ষা দফতরের একাধিক আধিকারিকের সঙ্গে বৈঠক করেন রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রী। বৈঠকের পর পার্থবাবু জানান, “আজকের বৈঠকের পুরো বিষয়টির রিপোর্ট মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হবে। তারপর তিনি সেই রিপোর্টে অনুমোদন দেবেন। সে কারণে এখন বিস্তারিত কিছু বলা যাচ্ছে না”। যদিও বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে কিছু স্বাধীকার দেওয়া হয়েছে পঠন-পাঠন চালানোর বিষয়ে। তবে পুরো বিষয়টি নির্ভর করছে মুখ্যমন্ত্রীর অনুমোদনের পর। যদিও প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজকে স্বাস্থ্যবিধ সুরক্ষিত রাখার বিষয়ে সম্পূর্ণ নির্দেশিকা জানানো হয়েছে। এরপরে শিক্ষা মন্ত্রী জানিয়েছেন, “সম্পূর্ণ জুলাই মাসটা স্কুল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এখনই শিক্ষাবর্ষ চালু করা যাবে না। কবে থেকে চালু হবে সে বিষয়ে এখন কিছু বলা যাচ্ছে না। আমরা অন্যান্য রাজ্যের সাথে যোগাযোগ করে দেখবো তারা কবে খুলছে সেইমতো পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।”

এদিকে, উচ্চশিক্ষার পরীক্ষাগুলোর বিষয়ে বৈঠকে উপস্থিত প্রত্যেকেই ঐক্যবদ্ধ হয়ে মত প্রকাশ করেছে বলে এদিন জানান তিনি। উপাচার্যদের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ আলোচনার পর পার্থ বাবু জানান, ” শারীরিকভাবে উপস্থিত না থেকে কি পদ্ধতিতে পরীক্ষা নেওয়া যায় সে বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। রাজ্যের বাইরে যে বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ গুলি আছে সেখানের কর্তৃপক্ষ এবং ইউজিসির সঙ্গেও পুরো বিষয়টা নিয়ে দীর্ঘক্ষন আলোচনা হয়েছে। সকলেই একমত উপনীত হয়েছেন।”তবে মুখ্যমন্ত্রী এই আলোচনার বিষয়ে যতক্ষণ না শিলমোহর দিচ্ছেন ততক্ষণ সেই নির্দেশিকার কথা জানানো যাবে না বলেই এদিন জানান শিক্ষা মন্ত্রী।

 

Related Articles

Back to top button
Close