fbpx
বাংলাদেশহেডলাইন

আট মাস পর ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে বিমান চলাচল শুরু

শিঘ্রই বাংলাদেশিদের ভ্রমণ ভিসা দেবে ভারত: দোরাইস্বামী

যুগশঙ্খ প্রতিবেদন, ঢাকা: করোনা মহামারির মধ্যে আট মাস বন্ধ থাকার পর ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের বিমান চলাচল শুরু হয়েছে। বুধবার সকালে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট চালুর মধ্যে দিয়ে দীর্ঘদিন পর বিমান চলাচল শুরু হয়।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের জনসংযোগ শাখার মহাব্যবস্থাপক মো. কামরুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ‘এয়ার বাবল’ চুক্তির অধীনে ঢাকা-চেন্নাই-ঢাকা, চট্টগ্রাম-চেন্নাই-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-কলকাতা-ঢাকা রুটে তাদের ফ্লাইট পরিচালনা শুরু হয়েছে।

১৬৪ আসনের বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট দিয়ে চেন্নাই ও কলকাতা রুটের ফ্লাইটগুলো পরিচালিত হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, বুধবার সকালে ঢাকা থেকে কলকাতায় ২৩ জন এবং চেন্নাইয়ে ৩২ জন যাত্রী যান। আবার কলকাতা ও চেন্নাই থেকে দুই ফ্লাইটে ৬৮ জন যাত্রী ঢাকায় ফিরেছেন।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স জানিয়েছে, সোমবার ছাড়া সপ্তাহের ছয়দিন তাদের ফ্লাইট ঢাকা থেকে সকাল ৯টা ৪৫ মিনিটে কলকাতার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে এবং স্থানীয় সময় সকাল ১০টা ১৫মিনিটে কলকাতায় অবতরণ করবে। কলকাতা থেকে স্থানীয় সময় সকাল ১১টায় ছেড়ে আসবে এবং ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দুপুর ১২টা ৩০ মিনিটে অবতরণ করবে।

এছাড়া প্রতি সোম, বুধ, শুক্র ও শনিবার সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে ঢাকা থেকে চেন্নাইয়ের উদ্দেশ্যে ছেড়ে স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা ৪০ মিনিটে চেন্নাইয়ে অবতরণ করবে ফ্লাইট। একইদিন দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে চেন্নাই থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে বিকাল ৪টা ৪০ মিনিটে পৌঁছাবে। প্রতি মঙ্গল, বৃহস্পতি ও রবিবার ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম হয়ে চেন্নাই ও চেন্নাই থেকে চট্টগ্রাম হয়ে ঢাকায়ও ফ্লাইট চালাবে ইউএস-বাংলা।

উল্লেখিত দিনে ঢাকা থেকে সকাল ৯টায় এবং চট্টগ্রাম থেকে সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে চেন্নাইয়ের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে এবং চেন্নাই থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে ছেড়ে আসবে এবং চট্টগ্রামে বিকাল ৪টা ৪০ মিনিটে ও ঢাকায় সন্ধ্যা ৬টা ১৫ মিনিটে পৌঁছাবে বলেও সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। ভারতের বিভিন্ন গন্তব্যে চলতি মাসেই নিয়মিত যাত্রীবাহী ফ্লাইট চালু করবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সও।

বাংলাদেশের রাষ্ট্রায়ত্ত বিমান সংস্থাটি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, ২৯ অক্টোবর থেকে তারা ঢাকা-দিল্লি-ঢাকা রুটে প্রথম ফ্লাইট চালু করবে।এর পর ১ নভেম্বর ঢাকা-কলকাতা-ঢাকা ও ১৫ নভেম্বর ঢাকা-চেন্নাই-ঢাকা রুটে নিয়মিত যাত্রীবাহী ফ্লাইট চলবে। বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো.মোকাব্বির হোসেন বুধবার দুপুরে বলেন, বিমান কলকাতা, দিল্লি ও চেন্নাই রুটে সপ্তাহে তিনটি করে ফ্লাইট চলবে।

অন্যদিকে বাংলাদেশের বেসরকারি বিমান সংস্থা নভোএয়ারের মার্কেটিং অ্যান্ড সেলস বিভাগের জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক একেএম মাহফুজুল আলম জানিয়েছেন, নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকে কলকাতায় একটি ফ্লাইট পরিচালনার কথা ভাবছে তারা। গত সপ্তাহের শুরুতে এক বিবৃতিতে ঢাকার বিদেশ মন্ত্রক জানায়, ভারতের সঙ্গে বিশেষ ব্যবস্থায় বাংলাদেশের বিমান যোগাযোগ শুরু হচ্ছে। ২৮ অক্টোবর থেকে ‘এয়ার বাবল’ ব্যবস্থাপনায় আকাশপথে এই যোগাযোগ পুনরায় চালু হবে বলে ওই বিবৃতিতে জানানো হয়।

বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের বরাতে মন্ত্রক জানিয়েছে, দুই প্রান্ত থেকে সপ্তাহে মোট ৫৬টি ফ্লাইট চলবে। বিশেষ পরিস্থিতিতে নিয়মিত ফ্লাইট বন্ধের সময় দুটি দেশ যখন বিশেষ ব্যবস্থায় নিজেদের মধ্যে বিমান যোগাযোগ স্থাপন করে, তাকে ‘এয়ার বাবল’ বলে। এই বিশেষ ব্যবস্থায় কারা যাওয়া-আসা করতে পারবেন, তা দেশ দুটির আলোচনার মধ্য দিয়ে ঠিক হয়। ভারত এখন ভুটান, মালদ্বীপ, আফগানিস্তান ছাড়াও মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্র-কানাডার সঙ্গে ‘এয়ার বাবল’ পরিচালনা করছে।

অনুষ্ঠানে ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় দোরাইস্বামী বলেন, ‘এয়ার বাবল বাস্তবায়নের জন্য দুদেশের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানাই। দুদেশের জনগণের জন্য এক দেশ থেকে অন্য দেশে চলাচলের সুযোগ করে দেওয়া, এই বন্ধুত্বকে এগিয়ে নেওয়ার বড় উপাদান।’ বিক্রম দোরাইস্বামী আরও বলেন, ‘ভারতীয় ভিসা সেবা সর্বোচ্চ পর্যায়ে ফিরিয়ে আনতে হাইকমিশনের পক্ষ থেকে যথাসাধ্য চেষ্টা করা হবে, এটুকু আশ্বাস দিচ্ছি। বাংলাদেশ থেকে যারা ভারত যেতে আগ্রহী, তারা যেন যেতে পারেন, সে চেষ্টা করছি। আমরা শিগগির পর্যটক ভিসা চালু করতে যাচ্ছি।’

Related Articles

Back to top button
Close