fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে শিক্ষকদের ভূমিকার প্রশংসা করে শিক্ষাব্যবস্থায় প্রযুক্তির ওপর জোর প্রধানমন্ত্রী মোদির

নতুন প্রজন্মকে আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য শিক্ষকদের দায়িত্ব নেওয়ার পরামর্শ মোদির

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে জীবনের সাফল্যের মূল চাবিকাঠি হলেন শিক্ষকরা, বলে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, আমাদের জীবনকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার পথে প্রধান পথ প্রদর্শক হলেন শিক্ষকরা। তারাই আমাদের জীবনে চলার পথের মূল ধারক-বাহক। সেই শিক্ষকদের বিশেষ সম্মান জানিয়ে আগামী ৫ সেপ্টেম্বর  সেই দিনটিকে বিশেষ ভাবে পালন করার কথা বলেন তিনি।

করোনা আবহে পরিবর্তিত পরিস্থিতির কথা উল্লেখ মোদি বলেন, করোনা সঙ্কটের আবহে আমাদের শিক্ষকদের সময়ের সঙ্গে বদলে যাওয়া পরিস্থিতির  সম্মুখীন হতে হচ্ছে। তবে আমি খুব খুশি যে আমাদের শিক্ষকরা শুধু সফলভাবে সেই পরিস্থিতি গ্রহণ করেছেন। পাশাপাশি তিনি বলেন, এই অবস্থায় পড়াশোনায় প্রযুক্তি যত বেশি সম্ভব ব্যবহার করা যায়, নতুন পদ্ধতিগুলি কিভাবে গ্রহণ করা যায়, শিক্ষার্থীদের কিভাবে সাহায্য করা যায়, এগুলি আমাদের শিক্ষকরা সহজভাবে করে দেখাতে সক্ষম হয়েছেন, এবং পড়ুয়াদের শিখিয়েছেন।

আজ দেশের সর্বত্র কিছু না কিছু উদ্ভাবনীর শক্তির উন্মেষ ঘটছে। শিক্ষক এবং ছাত্ররা মিলে নতুন কিছু করছেন। আমার বিশ্বাস রাষ্ট্রীয় শিক্ষা নীতির মাধ্যমে যেভাবে দেশে একটা বড় পরিবর্তন হতে চলেছে, সেটাও আমাদের শিক্ষকরা ছাত্রদের কাছে পৌঁছে দিতে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবেন।

আরও পড়ুন: ‘খেলনার জন্য ভোকাল’….দেশীয় জিনিস তৈরির ওপর জোর প্রধানমন্ত্রীর

পাশাপাশি দেশের নতুন প্রজন্মকে আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে ওঠার পরামর্শ দিয়ে মোদি বলেন, ২০২২ -এ আমাদের দেশ স্বাধীনতার ৭৫ বছর উদযাপন করবে। স্বাধীনতার অনেক বছর আগে থেকেই আমাদের দেশে স্বাধীনতা সংগ্রামের দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে। ওই সময়ে দেশের এমন কোন প্রান্ত ছিল না যেখানে স্বাধীনতার নেশায় মত্ত মানুষ নিজের প্রাণ উৎসর্গ করেননি, নিজের সর্বস্ব দান করেননি। এটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ যে আমাদের আজকের প্রজন্ম, আমাদের শিক্ষার্থীরা, দেশের বীর নায়কদের সঙ্গে পরিচিত হোক এবং সংগ্রামের সেই চেতনাকে অনুভব করুক।

প্রধানমন্ত্রী এদিন বলেন, নিজের জেলায়, নিজের এলাকায়, স্বাধীনতা সংগ্রামের সময় কি হয়েছিল, কী ভাবে হয়েছিল, কে শহিদ হয়েছিলেন, দেশের জন্য কে কতদিন জেলের সাজা ভোগ করেছিলেন, এই কথাগুলি যদি আমাদের শিক্ষার্থীরা জানেন তাহলে তার প্রভাব তাঁদের ব্যক্তিত্বেও পড়বে।এর জন্য অনেক কিছু করা যায়, এবং তাতে আমাদের শিক্ষকদের বড় দায়িত্ব থাকবে।

নরেন্দ্র মোদি বলেন, দেশ আজ যে উন্নতির পথে চলেছে, তার সাফল্য আনন্দের তখনই হবে যখন প্রত্যেক দেশবাসী এই যাত্রায় শামিল হবেন, এই যাত্রার যাত্রী হবেন, এই পথের পথিক হবেন। এই জন্য এটা জরুরি যে প্রত্যেক দেশবাসী সুস্থ থাকেন, সুখী থাকেন এবং আমরা এক যোগ হয়ে করোনাকে পুরোপুরি পরাস্ত করি।

আরও পড়ুন:‘মন কি বাত’ এ দেশবাসীকে পুষ্টিকর আহারের পরামর্শ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির

বক্তব্য শেষে তিনি ফের একবার সকলকে মনে করিয়ে দেন, করোনা তখনই হারবে যখন আপনি সুরক্ষিত থাকবেন, যখন আপনি “ দো গজ কী দুরি, মাস্ক জরুরি’ অর্থাৎ “ থাকুক দু গজের দুরত্ব, মানুন মাস্কের গুরুত্ব’, এই প্রতিজ্ঞা পুরোপুরি পালন করবেন।
আপনারা সবাই সুস্থ থাকুন, সুখী থাকুন, এই শুভকামনা নিয়েই পরের মন কি বাত-এ আবার দেখা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close