fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

পরিযায়ীদের ডিজিটাল রেশন কার্ড না থাকলেও, দেওয়ার হবে রেশন, হাওড়া জেলা প্রশাসন

পাপ্পা গুহ, উলুবেড়িয়া: পরিযায়ী শ্রমিকদের মধ্যে যাদের ডিজিটাল রেশন কার্ড নেই তাদেরও রেশনের দেওয়ার উদ্যোগ নিল হাওড়া জেলা প্রশাসন। ইতিমধ্যে প্রতিটি ব্লক ও গ্রাম পঞ্চায়েতকে সব পরিযায়ী শ্রমিকদের নাম পাঠাতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নাম সংগ্রহের ভিত্তিতে প্রশাসন একটা করে কুপন দেবে। কুপন দেখিয়ে ওই শ্রমিক পরিবার মাথাপিছু ৫ কিলোগ্রাম চাল ও পরিবার পিছু ১ কিলোগ্রাম ছোলা বিনা পয়সায় পাবে।

প্রশাসনের কর্তারা জানিয়েছেন রেশন নিয়ে বিভিন্ন সময়ই লোকেদের মধ্যে ক্ষোভ বিক্ষোভ দেখা দিয়েছিল। সরকার সমস্যা মিটিয়েছে। দেখা গিয়েছে কখনও ডিজিটাল কার্ডের আবেদনপত্র জমা দেওয়া সত্ত্বেও তাদের কার্ড না আসায় সরকার কুপনের ব্যবস্থা করে সমস্যা মিটিয়েছে। তো কখনও রাষ্ট্রীয় খাদ্য সুরক্ষা যোজনা ২ প্রকল্পের অর্ন্তভুক্ত হয়ে যাওয়া গরীর সহ সব মানুষকেই বিনা পয়সায় রেশন দেয় সরকার। পুরানো কার্ডও তাদের রয়েছে তাদেরও রেশনের খাদ্য সামগ্রী দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে সরকার।

আরও পড়ুন: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মা দূর্গার মতো কাজ করছেন, বিজেপি অসুর! মন্তব্য বিধায়ক ইদ্রিস আলির

হাওড়া গ্রামীণ এলাকায় প্রায় ২০ হাজার পরিযায়ী শ্রমিকরা বাড়ি ফিরেছেন। হাওড়া জেলা পরিষদের সহকারী সভাধিপতি অজয় ভট্টাচার্য বলেন, ওই পরিযায়ী শ্রমিকদের অনেকের ডিজিটাল রেশন কার্ড নেই। অনেকে আবার অন্য রাজ্যে রেশন কার্ড করে নিয়েছেন। ফলে পশ্চিমবঙ্গে তাদের রেশন কার্ড নেই। রেশন কার্ড না থাকায় তারা বিপদে পড়তে পারেন। তাই আগে থেকেই তাদের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করছে সরকার। তাদের কুপনের ভিত্তিতে মাথা পিছু চাল ও পরিবার ছোলা দেবে প্রশাসন।

বাগনান ১ নম্বর ব্লকের বিডিও সত্যজিত বিশ্বাস বলেন, আমরা ওই ধরনের পরিযায়ী শ্রমিকদের নাম সংগ্রহ করার কাজ শুরু করেছি। ১৫ তারিখের মধ্যে তা সম্পূর্ণ করার লক্ষে রয়েছে আমাদের। বাগনানের বিধায়ক অরুণাভ সেন বলেন, আমাদের লক্ষ্য কেউ যাতে অভুক্ত না থাকেন। সেটা নিশ্চিত করা। সেজন্যই এই ব্যবস্থা।

Related Articles

Back to top button
Close