fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনা আবহে দিনহাটা ‘নাম নেই’ সংঘের কালী পুজো হলেও মেলা হচ্ছে না

নিজস্ব সংবাদদাতা, দিনহাটা: করোনা আবহে দিনহাটা ‘নাম নেই’ সংঘের কালী পুজো হলেও এবছর মেলা হচ্ছে না। সরকারি বিধি নিষেধ মেনে পুজো করা হচ্ছে। পুজো মণ্ডপে কেই যাতে প্রবেশ করতে না পারে তার জন্য বাইরে সাদা রং দিয়ে বৃত্তাকার করে দেওয়া হয়েছে।  প্রতিবছর এই পুজো উপলক্ষে দিনহাটা সংহতি ময়দান দু’সপ্তাহের মেলা বসে। নাম নেই সংঘের কালীপুজো এবছর ৪৬ তম বর্ষের পুজো। একসময় এই পুজোর পৃষ্ঠপোষক ছিলেন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব কমল গুহ। বর্তমানে তার পুত্র উদয়ন গুহ এই পুজোর সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছেন।

পুজো কমিটির উদ্যোক্তাদের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, করোনা মহামারীর কারণে এ বছর নাম নেই সংঘের পুজো উপলক্ষ্যে যে ১৫ দিনের মেলা বসে তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সম্পূর্ণ তান্ত্রিক মতে এ পুজোতে এবছর ভক্তের সমাগম যাতে কম হয় তার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। কোনও মানুষ মণ্ডপের ভিতর প্রবেশ করতে পারবেন না। কোনও ভক্ত মণ্ডপে ভোগ দিতে পারবেন না এবং কোনওরকম প্রসাদ বিতরণ করা হবে না। সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবছর পুজো করা হবে। দিনহাটার এই মেলায় প্রতিবছর রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে দোকান নিয়ে আসেন ব্যবসায়ীরা। স্বপন সাহা নামে এক ব্যবসায়ী বলেন,”কোচবিহারের রাসমেলার আগে দিনহাটার এই মেলায় দোকান দেন। এই মেলা শেষ হলেই চলে যাই কোচবিহারে। করোনা আবহে গত প্রায় আট মাস ধরে কঠিন অবস্থায় দিন চলছে। কবে দূর হবে করোনা সেই আশায় পথ চেয়ে আছি।’

এদিকে উদ্যোক্তাদের বিমল চন্দ রায়, শিবনাথ বোস প্রমুখ  বলেন,” একসময় এই পুজোর পৃষ্ঠপোষক ছিলেন কমল গুহ। বর্তমানে তার পুত্র উদয়ন গুহ এই পুজোর সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছেন। প্রতিবছর পুজো উপলক্ষে মেলা বসলেও এবছর করোনা আবহে মেলা হচ্ছে না। তবে দর্শনার্থীরা যাতে সামাজিক দূরত্ব মেনে প্রতিমা দর্শন করতে পারেন তার জন্য মন্দিরের সামনে সাদা রং দিয়ে  বৃত্ত টানা হয়েছে। সম্পূর্ণ তান্ত্রিক মতে এই পুজোতে এবছর ভক্তের সমাগম যাতে কম হয় তার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। “পুজো কমিটির সভাপতি উদয়ন গুহ বলেন,”করোনা মহামারীর কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পুজো হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button
Close