fbpx
কলকাতাহেডলাইন

রোজভ্যালিকাণ্ডে গৌতম কুণ্ডুর ৩টি ফ্ল্যাট খালি করে পরিবারকে উচ্ছেদের নোটিশ ইডি-র

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়,  কলকাতা: সারদা তদন্ত মোটামুটি গতিতে চললেও যেন ঝিমিয়ে পড়ে চলছিল রোজভ্যালি কাণ্ডের তদন্ত। কিন্তু নতুন ডিরেক্টর আসার পরেই ফের যেন গতি এল এই ঘটনা তদন্তে। ইডি সূত্রের খবর, রোজভ্যালি কর্তা গৌতম কুণ্ডুর সাউথ সিটির ৩টি ফ্ল্যাট খালি করার নোটিশ দেওয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি সংস্থার একাধিক অফিসে পড়েছে নোটিশ।
সারদা কাণ্ডে চূড়ান্ত চার্জশিট দেওয়ার প্রক্রিয়া হলেও রোজভ্যালি কাণ্ডে তদন্তের প্রক্রিয়া অনেকটাই গতি রুদ্ধ হয়েছে বলে দিন কয়েক আগে ইডি-র প্রাক্তন স্পেশাল ডিরেক্টরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে সিবিআই। বলা হয়েছে বারবার  বলা সত্বেও গৌতম কুণ্ডুর ফোন বাজেয়াপ্ত করা নিয়ে উৎসাহ দেখায়নি ইডি অফিসাররা। ২০১৪ সালে রোজভ্যালিকাণ্ডের তদন্ত শুরু করে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। পরের বছর, ২০১৫-র মার্চে গৌতমকে গ্রেফতার করা হয়। তখন যদিও তাঁর ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন বাজেয়াপ্ত করা হয়নি। গৌতমের স্ত্রী শুভ্রা কুণ্ডুর সঙ্গে ইডি কর্তা মনোজ কুমারের একাধিক ঘনিষ্ঠ ছবিও প্রকাশ্যে আসে। তার জেরে মনোজ কুমারকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়।
দিন কয়েক আগে স্পেশাল ডিরেটর যোগেশ গুপ্তাকে সরানো হয়।‌ বুধবার তার জায়গায় দায়িত্ব নেন নতুন অ্যাডিশনাল ডিরেক্টর। তিনি আসার পরই রোজভ্যালিকাণ্ড নিয়ে সক্রিয় হল ইডি। জানা গিয়েছে, এবার  বিধানসভা নির্বাচনের আগে  ফের নতুন  গতিতে এই মামলার তদন্ত  এগিয়ে নিয়ে যেতে চায়  ইতিমধ্যেই  এ মামলার একাধিক চার্জশিট জমা পড়েছে। কিন্তু গৌতম কুন্ডু সঙ্গে কোন কোন বড় মাথা জড়িয়ে ছিল, তা জানতে গৌতম কুণ্ডুকে জেলে গিয়ে জেরাও করবেন তদন্তকারীরা। জেরা করা হবে শুভ্রা কুণ্ডুকেও। তবে আপাতত গৌতম কুন্ডু সাউথ সিটির তিনটি ফ্ল্যাট খালি করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে গৌতম কুন্ডুর পরিবারকে ওই স্থান ছেড়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close