fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

অশুভ শক্তি বানচাল করতে পারে পুজোর আনন্দ, আশঙ্কা পুলিশ মহলে

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: কোনও অশুভ শক্তি বানচাল করতে পারে পুজোর আনন্দ ।এমন আশঙ্কা তৈরি হয়েছে খোদ পুলিশ মহলে। তাই পুজো আয়োজক কর্তাদের রাত জেগে মণ্ডপ পাহারা দেবার ফরমান মঙ্গলবার জারি করলেন পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায় ।

একই সঙ্গে তিনি জানিয়ে দেন,কিছু কিছু শক্তি ও কুচক্রী সক্রিয় তাই আমাদের সবাইকে সাবধানে থাকতে হবে,যাতে করে সম্প্রতির বাতাবরণ যেন নষ্ট না হয়। পুজো কমিটিগুলিকে নিয়ে এদিন বর্ধমানের লোকসংস্কৃতি মঞ্চে উনুষ্ঠিত হয় সমন্বয় বৈঠকে।সেই বৈঠকে পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায় ছাড়াও জেলা শাসক বিজয় ভারতি , অতিরিক্ত জেলাশাসক অরিন্দম নিয়োগী ,জেলা স্বাস্থ্য আধিকারিক প্রণব রায় সহ জেলা পুলিশ ও প্রসাসনের অন্য কর্তারা উপস্থিত ছিলেন ।

বৈঠকে কোভিড পরিস্থিতির মধ্যে কিভাবে পুজোর আয়োজন করতে হবে সেই বিষয়ে আলোচনা হয় । পুলিশ সুপার
পুজো উদ্যোক্তাদের বলেন, প্রতি মণ্ডপের স্বেচ্ছাসেবকদের রাত জেগে মণ্ডপ ও প্রতিমা পাহারা দিতে হবে । পুজো কমিটিগুলিকে তাদের স্বেচ্ছাসেবকদের নামের তালিকা থানায় জমা দেওয়ারও নির্দেশ দেওয়া হয়।
পুজো প্যাণ্ডেলে ভিড় না করা, মাস্ক ব্যবহার করা, মণ্ডপ জীবাণুমুক্ত করা সহ
একাধিক বিষয়ে মনে চলার কথা পুজো উদ্যোক্তাদের জানিয়ে দেওয়া হয় । স্বাস্থ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে। বিদ্যুৎ, অগ্নিনির্বাপন এবং দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ তাদের নিয়মনীতি নিয়ে পুজো উদ্যোক্তাদের সঙ্গে আলোচনা করেন।

বৈঠকে পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায়ের বক্তব্য ছিল বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ । তিনি বলেন ,
প্রতি পুজোর দিন গুলিতে পুজো কমিটিকে রাতে বিশেষ স্বেচ্ছাসেবক রাখতে হবে। তারা রাত জেগে মণ্ডপ পাহারা দেবে। এর কারণ প্রসঙ্গে পুলিশ সুপার বলেন, কোনও অশুভ শক্তি যাতে পুজোর আনন্দ বানচাল করতে না পারে তাই এই ব্যবস্থা। সব মণ্ডপে সারারাত পাহারা দেওয়ার জন্য পুলিশ দেওয়া সম্ভব নয়। তাই পুজো কমিটিকে এই বিষয়ে দায়িত্ব নিতে বলা হচ্ছে ।

জেলাশাসক বিজয় ভারতি পুজোর আগে রাস্তার গর্ত, লাইট, ড্রেন এই সংক্রান্ত সমস্যা দ্রুত মিটিয়ে দেবার আশ্বাস দেন । জেলাশাসককের এই আশ্বাসে খুশি পুজো উদ্যোক্তারা। জেলাশাসক জানান , “পুজোর দিনগুলিতে প্রশাসনের তরফে হেল্পলাইন চালু থাকবে। স্বাস্থ্যদপ্তরও হেল্পলাইন চালু
করেছে। কোভিড, পুজো এবং আইন শৃঙ্খলার সঙ্গে যুক্ত সরকারী কর্মীদের পুজোর ছুটি বাতিল করা হয়েছে।”

Related Articles

Back to top button
Close