fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

কলেজে বসেই পরীক্ষা, আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু কলেজের অধ্যক্ষকে জবাব তলব উচ্চ শিক্ষা দফতরের

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: শুক্রবার দেখা গেল দক্ষিণ কলকাতার আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু কলেজ কেন্দ্র বসেই পরীক্ষা দিল পরীক্ষার্থীরা। যা নিয়ে শুরু হয়েছিল বিতর্ক।এই ঘটনার ২৪ ঘণ্টা কাটার আগেই কলেজের অধ্যক্ষ পূর্ণ চন্দ্র মাইতির কাছে জবাব তলব করল উচ্চ শিক্ষা দফতর ও কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়।
করোনা আবহে এই বছর কেন্দ্রে নয় বাড়িতে বসেই ওপেন বুক টেস্ট দিচ্ছে পরীক্ষার্থীরা। আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু কলেজ হাতেগোনা কয়েকজন পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিলেন কলেজে বসে। নিজেদের মধ্যেই সুরক্ষা দূরত্ব বজায় রেখে তারা পরীক্ষা দিয়েছে। কিন্তু যেখানে বাড়িতে বসেই অনলাইনে ওপেন বুক সিস্টেমে সকলে পরীক্ষা দিচ্ছে সেখানে এই কলেজে কেন বারণ সত্তেও কেন কেন্দ্রে বসে পরীক্ষা সেই নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন।

এই প্রসঙ্গে এজেসি বোস কলেজের অধ্যক্ষ পূর্ণ চন্দ্র মাইতি জানান, ‘আমাদের কলেজে মলাদা, মুর্শিদাবাদের মত জায়গা থেকে প্রচুর ছাত্র-ছাত্রী পড়াশোনা করে। ওদের ওখানে ইন্টারনেট সমস্যা বা অনেকের কাছেই অ্যান্ড্রয়েড ফোনও নেই। ওরা আমাদের কাছে আবেদন জানিয়েছিল, তাই আমরা কলেজে বসে পরীক্ষা দেওয়ার ব্যবস্থা করেছি’।
সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার এর এই ঘটনার প্রেক্ষিতে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য ফোন করেন কলেজ অধ্যক্ষকে। কেন কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের বসিয়ে পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে তা নিয়ে জানতে চাওয়া হয়।
অধ্যক্ষকে তলব করার প্রসঙ্গে আজ তিনি জানান, “ উচ্চশিক্ষা দফতর ও কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আমার কাছে রিপোর্ট চেয়েছে। আমি যা জানানোর জানিয়েছি। আইনের বিরুদ্ধে বা নিয়মের বাইরে আমি কোনও কিছুই করিনি। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বা সরকারের থেকে এমন কোনও নির্দেশিকা আসেনি যেখানে বলা হয়নি কলেজে ছাত্র-ছাত্রীদের বসিয়ে পরীক্ষা নেওয়া যাবে না।”
যদিও কলেজ অধ্যক্ষ পূর্ণ চন্দ্র মাইতি বৃহস্পতিবার দাবি করেছিলেন ” আমাদের কলেজের অনেক ছাত্রছাত্রী অ্যান্ড্রয়েড ফোন নেই। ইন্টারনেট সংযোগ অনেক ছাত্রছাত্রী কাছেই সহজলভ্য ছিল না তার জন্যই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম কলেজে বসেই ছাত্র-ছাত্রীদের পরীক্ষা নেব।”

উল্লেখ্য, পূর্বঘোষণা মতো ১ অক্টোবর থেকে শুরু হয়েছে চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা। বাড়িতে বসেই অনলাইনে পুরোপুরি ইন্টারনেটের ওপর ভিত্তি করেই হচ্ছে পরীক্ষা নেয়ার কথা জানিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী। পরীক্ষা চলবে ১৮ই অক্টোবর পর্যন্ত। বাড়িতে বসেই ওপেন বুক পরীক্ষা দেওয়ার কথা বলা হয় পরীক্ষার্থীদের। আগেই জানানো হয়েছে, দু-ঘন্টায় পরীক্ষার লেখা শেষ করে ১৫ মিনিটের মধ্যে কলেজ প্রদত্ত নির্দিষ্ট ওয়েবাসাইটে জমা দিতে হবে খাতা।কিন্তু আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু কলেজে গুটি কয়েকের জন্য দেখা গেল সেই নিয়মে পরিবর্তন

Related Articles

Back to top button
Close