fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

শ্বশুরবাড়ি থেকে যুবকের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য

মিলন পণ্ডা , মারিশদা: শ্বশুরবাড়ি থেকে জামাইয়ের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধারকে ঘিরে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়েছে। মৃত্যুকে ঘিরে একাধিক রহস্যের দানা বেঁধেছে গোটা এলাকায়।খুনের অভিযোগ তুলে সরব হয়েছেন মৃত যুবকের প্রতিবেশী থেকে পরিবারের সদস্যরা। যদিও জামাই আত্মঘাতী হয়েছে বলে শ্বশুরবাড়ি সদস্যদের দাবি করেছেন। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মারিশদা থানার জামুয়া শঙ্করপুর এলাকায়। পুলিশ গিয়ে শ্বশুরবাড়ি থেকে জামাইয়ের কাপড়ের ফাঁস লাগানো অবস্থায় ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করে নিয়ে আসে। পুলিশ জানিয়েছে, মৃত যুবক রাজীব মেট‍্যা (২৮)। তার বাড়ি মারিশদা থানার জামুয়া এলাকায়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েক বছর আগে জামুয়া শঙ্করপুর গ্রামের এক যুবতীর সঙ্গে প্রেম করে বিয়ে করে রাজীব। বিয়ের পর তাদের একটি পুত্র ও কন্যা সন্তান জন্মগ্রহণ করেন। পারিবারিক বিষয় নিয়ে প্রায়ই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বচসা হত বলে স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি। সোমবার স্ত্রী দুই সন্তান নিয়ে রাজীব তার শ্বশুর বাড়িতে আসেন। মঙ্গলবার সকালে বাড়ির কড়িকাঠে কাপড়ের ফাঁস লাগানো অবস্থায় ঝুলন্ত মৃতদেহ দেখতে পায় তার শ্বশুর বাড়ির সদস্যরা। প্রতিবেশীরা জানতে পেরে পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ এসে বাড়ি থেকে ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায়। মৃতদেহটি ময়না তদন্তে জন্য কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধারকে ঘিরে এলাকায় একাধিক রহস্যের দানা বেঁধেছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, জামাইকে খুন করে প্রমান লোপাটের জন্য ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দিয়েছে তার শ্বশুরবাড়ির সদস্যরা। এটি কোন মতেই আত্মহত্যা বলে মেনে নিতে পারছেন না স্থানীয় বাসিন্দা থেকে পরিবারের সদস্যরা। যদিও মৃত রাজীভের শ্বশুরবাড়ি সদস্যদের দাবি পারিবারিক অশান্তির কারণে আত্মঘাতী হয়েছে। যদিও এখনও পর্যন্ত থানায় কোনো লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি।

মারিশদা থানার ওসি অমিত দেব বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে বাড়ি থেকে ঝুলন্ত মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কাঁথি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্টে এলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ অনেকটাই পরিস্কার হবে। এই ঘটনায় ধৃত যুবকের পরিবারের পক্ষ থেকে এখনো পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ দায়ের করেনি। ময়না তদন্তের রিপোর্টে এলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ পরিস্কার হবে। একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close