fbpx
কলকাতাহেডলাইন

স্বাধীনতা দিবসে প্রবাসী বাঙালিদের নজরে একুশ, ভিডিও বৈঠকে কৈলাস, দিলীপ

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: একুশের বিধানসভা নির্বাচনী যুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারে বিদেশের প্রবাসী বাঙালিদের সংগঠন। স্বাধীনতা দিবসের রাতে বিশ্বের ৩০ টি দেশের ৫০ টির বেশি শহরের বাঙালিরা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কথা বলবেন বিজেপির এ রাজ্যের কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় ও রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের সঙ্গে। আলোচনার বিষয় -‘ ভারতের স্বাধীনতা দিবস বাঙালির পুনরুত্থানের শপথ গ্রহণের সঙ্গেই পালন’ । আয়োজনে এনআর আই বেঙ্গল। আলোচনাসভার সঞ্চালনায় থাকবেন যুধাজিৎ সেন মজুমদার।

বঙ্গরাজনীতির যাঁরা হালহকিকত জানেন তাঁদের কাছে বঙ্গবিজেপির সঙ্গে প্রবাসী বাঙালিদের যোগাযোগটা নতুন কিছু নয়। উনিশের লোকসভা নির্বাচনের আগেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালিতে ‘ ম্যায়ভি চৌকিদার হুঁ’ কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছিলেন প্রায় ৬০০ জন প্রবাসী বাঙালি। সেবারও ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কথা বলেছিলেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়। সেই অনুষ্ঠানটির আয়োজক ছিল ‘ নববঙ্গ’। কিন্তু প্রবাসী বাঙালিদের কাছে টানার নেপথ্যে নির্বাচনের অঙ্কটা কি? রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ অবশ্য এরমধ্যে রাজনীতির অঙ্ক দেখছেন না। তাঁর বক্তব্য, ‘ দেশ থেকে হাজার হাজার মাইল দূরে থাকলেও প্রবাসী বাঙালিদের দেশের প্রতি একটা টান রয়েছে। বাংলা নিয়ে ওঁরা চিন্তিত, একটা গৌরবের দিন ১৫ আগস্ট। তাই সেদিন রাতে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কথা বলবেন, জানবেন এখানকার পরিস্থিতি। ওদের আত্মীয়স্বজন ও এখানে রয়েছেন। বাঙালির টানতো।”

 

একুশের আগে বঙ্গবিজেপির কাছে গুরুত্ব পাচ্ছে বাঙালিয়ানা। বঙ্গ বিজেপির একাংশের মতে এইধরনের কনফারেন্সের মাধ্যমে ওই প্রবাসী বাঙালিদের যে আত্মীয় পরিজনরা বাংলায় থাকেন তাঁদের কাছে পৌঁছাতে চাইছে দল। ষোলোআনা বাঙালিয়ানাই এখন বঙ্গবিজেপির চ্যালেঞ্জ। বাইশে শ্রাবণ এই প্রথমবার গেরুয়া শিবিরে তাই এতো উচ্ছ্বাসের সঙ্গে পালিত হলো। একুশের মহারণের তুরুপের তাস যে বাঙালিয়ানা।

Related Articles

Back to top button
Close