fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

আহমেদাবাদের রাসায়নিক কারখানায় বিস্ফোরণ, গোডাউন ভেঙে আটকে মৃত ১২ শ্রমিক

মৃতদের পরিবার পিছু ৪ লক্ষ টাকার ক্ষতিপূরণ ঘোষণা গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রীর, শোকপ্রকাশ প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার আবহে একের পর এক প্রাণহানি থেকে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের ঘটনা অব্যাহত। আহমেদাবাদের একটি রাসায়নিক কারখানায় বিস্ফোরণের ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে কমপক্ষে ১২ জনের। এর মধ্যে পাঁচজন মহিলা শ্রমিক রয়েছেন। আহতের সংখ্যা ৯ জন।পিরানা-পিপলাজ রোডের ওপর থাকা একটি গোডাউনে এই দুর্ঘটনা ঘটে। বুধবার সকালে রাসায়নিক ঠাসা কারখানার গুদামে বিস্ফোরণের জেরে ভেঙে পড়ে গুদামের দেওয়াল। আগুন ছড়ায় সংলগ্ন কারখানাগুলিতেও।

সকালে দুর্ঘটনার খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে হাজির হয় উদ্ধারকারী দল ও ফায়ার ব্রিগেড। ২৪টি ইঞ্জিন টানা ৯ ঘন্টা উদ্ধার কাজ চালানোর পরে রাত সাড়ে ৮ টা নাগাদ ৯ জনকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করে। জখম অবস্থায় আহতদের তড়িঘড়ি আহমেদাবাদ মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের এলজি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সকলের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

জানা গেছে, আগুন লাগলেও তা ততটা ভয়ংকর ছিল না। তবে বিস্ফোরণের কারণে গোডাউনটি ভেঙে পড়ে। আর তাতেই আটকে পড়েন বহু শ্রমিক। মৃত্যুও হয়। কংক্রিট কেটে উদ্ধার করতে হয় আটকে পড়া শ্রমিকদের।জানা গিয়েছে, রাত ১১টা নাগাদ এক শক্তিশালী বিস্ফোরণে এই দুর্ঘটনা ঘটে। আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। সেই সময়ে নাইট শিফটে কাজ চলছিল।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দও টুইটারে মৃতদের প্রতি শোকজ্ঞাপন করার পাশাপাশি আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন।

আরও পড়ুন:বৃহস্পতিবার সকালে অমিত শাহ বাঁকুড়ায়, পুরো নিরাপত্তা বলয়ে গোটা জেলা 

দুর্ঘটনায় মৃত শ্রমিকদের পরিবার পিছু ৪ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানী। পুলিশের ডেপুটি কমিশনার অশোক মুনিয়া বলেছেন, কী কারণে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটল খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button
Close