fbpx
দেশহেডলাইন

ডেপুটি চেয়ারম্যান উদার হৃদয়ের মানুষ, তাঁর দেওয়া চা এমপিরা প্রত্যাখ্যান করার পরে টুইট মোদির

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: কৃষি বিল নিয়ে উত্তপ্ত রাজ্যসভা। জোড়া বিল পাশ হয়ে যাওয়ার পর থেকেই ডেপুটি চেয়ারম্যানকে নিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে থাকে বিরোধী সাংসদরা। বাধ্য হয়ে ৮ জনকে সাসপেন্ডও করা হয় রাজ্যসভা থেকে। সেই বিক্ষুব্ধ ৮ সাংসদ গতকাল থেকে পার্লামেন্টের সামনে গান্ধি মূর্তির পাদদেশে ধর্ণায় বসেছে। রাতভর ধরে চলা এই অবস্থান বিক্ষোভে মঙ্গলবার সকালে দেখা গেল একটি বেনজির ঘটনা। এদিন সকালে বিক্ষোভরত সাংসদদের চা খাওয়াতে গেলেন রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান হরিবংশ নারায়ন সিং, যা দেখে আপ্লুত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ‘ক’দিন আগেই যাঁরা তাঁকে আক্রমণ করেছেন, অপমান করেছেন, তাঁদের নিজের হাতে চা দিতে গিয়েছিলেন শ্রী হরিবংশজি। তিনি বিনয়ী এবং উদার প্রকৃতির মানুষ। তিনি মহত্‍। দেশের মানুষ তাঁকে অভিনন্দন জানাচ্ছেন। আমিও তাঁকে অভিনন্দন জানাচ্ছি।’ মঙ্গলবার সকালে এমনই টুইট করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিরোধীদের অভিযোগ ছিল, তিনি গণতান্ত্রিক রীতিনীতির তোয়াক্কা করেননি। রবিবার তড়িঘড়ি কৃষি বিলগুলি পাশ করাতে সরকারকে সাহায্য করেছেন। তাঁর বিরুদ্ধে রাজ্যসভায় অনাস্থা প্রস্তাব আনতে চেয়েছিলেন বিরোধীরা। চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নায়ডু অবশ্য সেই প্রস্তাব মানেননি। রাজ্যসভায় বিশৃঙ্খলার অভিযোগে সোমবার আট সাংসদকে সাসপেন্ড করা হয়। তাঁরা সোমবার রাতভর সংসদ চত্বরে ধরনায় বসেন। মঙ্গলবার সকালে তাঁদের চা খাওয়াতে যান হরিবংশ। কিন্তু তাঁরা সেই চা খাননি। উলটে অভিযোগ করেন, চা খাইয়ে কূটনীতি করতে এসেছেন হরিবংশ। এরপরে মোদী হরিবংশকে অভিনন্দন জানিয়ে টুইট করেন।

আসলে ‘জোর করে’ কৃষি বিল পাশ , এবং ‘বেআইনিভাবে’ সাসপেন্ড করার অভিযোগে রাতভর সংসদের গান্ধীমূর্তির পাদদেশে ধরনায় রাজ্যসভার  আট সাংসদ। গণতন্ত্রের পীঠস্থান সংসদের ‘মর্যাদা লঙ্ঘনের’ অভিযোগে গতকালই এদের ৭ দিনের জন্য সাসপেন্ড করেন চেয়ারম্যান ভেঙ্কাইয়া নায়ডু। যার প্রতিবাদে কাল দুপুরেই গান্ধী মূর্তির পাদদেশে ধরনায় বসেন বিরোধী সাংসদরা। আজ সকালে এই ধরনারত সাংসদদের রীতিমতো ‘সারপ্রাইজ’ দেন রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান। নিজে চলে যান গান্ধীমূর্তির পাদদেশে। বিরোধী সাংসদদের সঙ্গে কথা বলেন, তাঁদের চা খাওয়ান। অনেকেই তাঁর এই সৌজন্যের প্রশংসা করা শুরু করেন। খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি টুইট করেন। নিন্দুকেরা অবশ্য বলছেন, প্রধানমন্ত্রীর টুইটে একাধিকবার বিহারের উল্লেখ থেকেই বোঝা যায়, সামনে বিহারের নির্বাচনের কথা মাথায় রেখেই টুইটটি করা।

আরও পড়ুন: পিছিয়ে পড়া রাজ্যগুলিকে সক্রিয় করতে উদ্যোগ মোদি সরকারের, বিমানবন্দর উন্নয়নে বরাদ্দ ৯৮ কোটি টাকা

সাসপেন্ডেড এমপিদের মধ্যে আছেন তৃণমূল কংগ্রেসের ডেরেক ওব্রায়েন, দোলা সেন, আম আদমি পার্টির সঞ্জয় সিং, কংগ্রেসের রাজীব সাতভ, সৈয়দ নাসির হুসেন, রিপুন বরেন, সিপিএমের কে কে রাগেশ, এলামারান করিম। তাঁরা এক সপ্তাহ রাজ্যসভার অধিবেশনে অংশ নিতে পারবেন না। সোমবার রাজ্যসভায় তাঁদের শাস্তি ঘোষণা করার পরেই তাঁরা সংসদ চত্বরে প্রতিবাদে বসেন। তাঁদের হাতে রয়েছে প্ল্যাকার্ড। তাতে লেখা, ‘আমরা কৃষকদের জন্য লড়াই করব’, ‘পার্লামেন্টকে খুন করা হয়েছে’। আট এমপি সংসদ চত্বরে কাপড় বিছিয়ে ধরনায় বসেছেন। তাঁদের সঙ্গে আছে বালিশ, কম্বল, দু’টি ফ্যান এবং মশা তাড়ানোর ধুপ। বিভিন্ন বিরোধী দলের নেতা তাঁদের সঙ্গে দেখা করে সমর্থন জানিয়ে এসেছেন।

 

Related Articles

Back to top button
Close