fbpx
কলকাতাহেডলাইন

শঙ্কা সংক্রমণের! যাত্রীদের সচেতনতার উপরই ভরসা রাখছে রেল

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: দীর্ঘ সাত মাসের পর বুধবার থেকে চালু হতে চলেছে লোকাল ট্রেন। আমজনতার কাছে স্বস্তির খবর হলেও দুশ্চিন্তায় ঘুম উড়েছে রেলকর্তাদের, চিন্তিত নবান্নের কর্তারাও। কারণ ভিড় নিয়ন্ত্রণ কতোদূর সম্ভব! তা নাহলে করোনা সংক্রমণ বাড়ার সমূহ সম্ভাবনা। জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা সম্ভাব্য বাড়তি সংক্রমণ নিয়ে রাজ্য সরকারের কাছে বারবার উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তাঁদের বক্তব্য লোকাল পরিষেবা চালুর ক্ষেত্রে অনেক বেশি সতর্কতা প্রয়োজন। রেল ও রাজ্য সরকার এই বিষয়ে একাধিক আচরণবিধি জারি করেছেন। কিন্তু আশঙ্কা যাচ্ছে না, রেল তাই ভরসা রাখছে মানুষের সতর্কতা, সচেতনতাবোধের উপর। যাত্রীদের নিজের সুরক্ষার দায়িত্ব যাত্রীদেরই নিতে হবে। শিয়ালদহের ডিআরএম এসপি সিংর কথায়, ‘কাকে কীভাবে আটকানো যাবে? টিকিট কেটে সবাই ট্রেনে চড়বেন। এক ট্রেনে ৬০০ যাত্রী ঘোষণা করা হয়েছে। তা কি মানবেন যাত্রীরা? , নিজের সুরক্ষা সম্পর্কে নিজেকেই সচেতন থাকতে হবে। কোন ট্রেনে কখন কীভাবে যাত্রা করে নিজেকে সুরক্ষিত রাখবেন সে ভাবনা ও দায়িত্ব যাত্রীর নিজের।’

রেল অবশ্য যাত্রী সচেতনতায় একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে। সব স্টেশনের নানা জায়গায় কোভিড বিধি মেনে যাত্রার কৌশলের বিষয়ে পোস্টার লাগানোর কাজ চলছে। যেখানে ভিডিও এড্রেস সিস্টেম রয়েছে সেখানে তা দেখানো হবে। যে স্টেশনে অডিও এড্রেস সিস্টেম রয়েছে সেখানে শুধুমাত্র ঘোষণা হবে সচেতনতার।কোন রেল পুলিশ থানার আওতায় কতগুলি স্টেশন, ক’টা স্টেশনে কত পুলিশ দেওয়া যাবে, আরপিএফ কতো কর্মী দেবে, তা খতিয়ে দেখে অবিলম্বে রিপোর্ট দাখিল করতে বলা হয়েছে রেল পুলিশকে।

তবে সূত্রের খবর, সব স্টেশনে ফোর্স দেওয়া সম্ভব নয়। অতিরিক্ত ভিড় যে স্টেশনে হয় সেখানে অফিসার দেওয়া হলেও কার্যত ছোট স্টেশনগুলিতে সিভিক পুলিশ দেওয়া হবে। পুলিশ মূলত বুকিং অফিস ও স্টেশনের ঢোকার মুখে থাকবে। পরিস্থিতি অনুযায়ী কন্ট্রোলের সঙ্গে যোগাযোগ রাখবে। বেগতিক দেখলে সেখানে যাবে বাড়তি ফোর্স। কোভিড সুরক্ষা বিধি নিয়ে আদর্শ বিধি প্রকাশ করেছে রাজ্য। তাতে বলা হয়েছে , চাহিদা অনুযায়ী ট্রেনের সংখ্যা বাড়াতে হবে, ট্রেনের কামরায় ঘনঘন জীবাণু নাশ , মাস্ক পরে ট্রেনে ওঠা বাধ্যতামূলক, প্রতিটি স্টেশনে সতর্কতা বিধি ঘোষণা, বিজ্ঞাপন দিয়ে সতর্কতা বিধি প্রচার, রেল ও রাজ্য পুলিশের মধ্যে সমন্বয় করতে হবে।

ট্রেন চলাচলের সার্বিক বিষয় জানিয়ে ফের রাজ্যকে রেল চিঠি দিয়েছে। শিয়ালদহ ডিভিশনে ৪১৩টি, হাওড়া ডিভিশনে ২০২টি ট্রেনের তালিকা ও চলাচলের সময় জানিয়ে রাজ্যের কাছে তা মঞ্জুরীর জন্য পাঠিয়েছে। সবুজ সংকেত পেয়ে সোমবার সিদ্ধান্তে সিলমোহর দেবে রেল। নিত্য যাত্রীদের জন্য সুখবর, লকডাউন পর্বে যে যাত্রীদের মান্থলি সম্পূর্ণ হতে বাকি ছিল তাঁদের মান্থলি পুনর্নবিকরণ হবে। বেঁচে থাকা দিনগুলিতে তাঁরা যাত্রার সুযোগ পাবেন। এজন্য সোমবার থেকে নির্ধারিত কাউন্টারে গিয়ে তা পুনর্নবিকরণ করতে হবে। সুরক্ষিত লোকাল যাত্রা কতদূর সম্ভব সময় বলবে।

Related Articles

Back to top button
Close