fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিনা নোটিশে বন্ধ লঞ্চ পরিষেবা, বিক্ষোভ মহিলাদলে

মিলন পণ্ডা, মহিষাদল:  বিনা নেটিশের লঞ্চ পরিসেবা বন্ধ থাকায় বিক্ষোভ দেখালেন যাত্রীরা। বুধবার সকালে গেঁওখালি থেকে নুরপুর ও গাদিয়াড়া লঞ্চ পরিষেবা আচমকাই বন্ধ করে দেয়। বুধবার যাএীরা এসে দীর্ঘক্ষন দাঁড়িয়ে থাকে। গেঁওখালি ফেরিঘাটে এসেও লঞ্চে পরিসেবা বন্ধ থাকার কারনে গন্তব্য স্থলে যেতে না পারলে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন যাত্রীরা।ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে মহিষাদল থানার পুলিশ। উওেজিত যাএীদের বুঝিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

স্থানীয় সূত্রে জানাগিয়েছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মহিষাদল ব্লকের গেঁওখালি থেকে হাওড়ার নুরপুর ও গাদিয়াড়ায় প্রত্যেক দিন লঞ্চে করে কলকাতায় যাতায়াত করেন জেলার বহু মানুষ। আম্ফানের ঝড়ের ২০ মনে পর কিছুদিন পরিষেবা বন্ধ ছিল। ১ জুন পর এই পরিসেবা স্বাভাবিক করা হয়। গত দুদিন সেই ফেরি সার্ভিস স্বাভাবিক থাকার পর বুধবার আচমায় বিনা নোটিশের হঠাৎ করেই বন্ধ করে দেওয়া হয়। সকালে এসেই লঞ্চ না পেয়ে যাএীরা ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন প্রায় শতাধিক যাত্রী। প্রায় দুঘন্টা করে চলতে থাকে বিক্ষোভ। পরিস্থিতি চরমে উঠলে ঘটনার স্থলে হাজির হয় মহিষাদল থানার পুলিশ। যাএীদের বুঝিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

বিক্ষোভকারী এক যাএী সমরেশ দাস অভিযোগ করে বলেন মঙ্গলবার গেঁওখালি ফেরিঘাটে এসে আমরা দেখেগছি লঞ্চ চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। সেইমতো বুধবার কাজে যোগ দেওয়ার জন্য লঞ্চ ধরতে আসি।আগাম কোন নোটিশ ছাড়াই পরিসেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এরজন্য আমরা সমস্যা পড়তে হলো।মহিষাদলের বিডিও জয়ন্ত দে বলেন গেঁওখালি থেকে ফেরি সার্ভিস দুদিনের জন্য চালু করা হয়েছিল।মঙ্গলবার পরিবহণ দফতরের ইঞ্জিনিয়াররা জেটি পরিদর্শন করার পর সিদ্ধান্ত নেন সেটি বিপদজনক অবস্থায় রয়েছে। তাই যাত্রীদের নিরাপত্তার স্বার্থেই কথায় মাথায় রেখে দ্রুত মেরামতির জন্যই ফেরি সার্ভিস বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সম্পূর্ণরূপে মেরামতের পর দ্রুত যাত্রী পরিষেবা স্বাভাবিক করা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close