fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

পেশায় সাংবাদিক! আজারবাইজানের বিরুদ্ধে যুদ্ধক্ষেত্রে লড়ছেন আর্মেনিয়ান প্রধানমন্ত্রীর স্ত্রী

আর্মেনিয়া আজারবাইজান যুদ্ধকে কেন্দ্র করে পরস্পর বিরোধী জোট বাঁধছে খ্রিষ্টান-ইসলামিক দুনিয়া

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ধোঁয়ায় ধূসরিত আকাশ বাতাস। সেখানেই আপাদমস্তক সামরিক পোশাক হাতে ভারী অস্ত্র নিয়ে যুদ্ধ ক্ষেত্রের এদিক থেকে ওদিকে ছুটে চলেছেন এই মহিলা। কখনো বা বানক কাছ থেকে গুলিও ছুড়েছেন শত্রুপক্ষের দিকে। তিনি হলেন হাকোবিয়ান। আর্মেনিয়ান প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশিকিতের স্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী স্ত্রী হলেও পেশায় তিনি সাংবাদিক।‌ আর্মেনিয়ান টাইমসের সম্পাদক হন হাকোবিয়ান। প্রধানমন্ত্রীর স্ত্রী স্বয়ং দেশের হয়়ে যুদ্ধক্ষেত্রে লড়ছেন বাকি সৈন্যদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে। আশ্চর্য হলেও এটাই সত্যি ঘটনা।

শুধু স্ত্রী হাগোবিয়ানি নয় যুদ্ধক্ষেত্রে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর পুত্র অ্যনা পাশিকিতো। আজারবাইজান সীমান্তের অন্য এক প্রান্তরে দেশের অন্য যুবদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে রক্তাক্ত সংগ্রামে যুক্ত তিনি।

যেকোনো মূল্যে হারাতে হবে শত্রু আজারবাইজানদের। চাই ক্ষমতার দম্ভ সবকিছু দূরে সরিয়ে দেশের ও জাতীয়তাবাদী স্বার্থ রক্ষায় যুদ্ধের ময়দানে করে চলেছেন প্রধানমন্ত্রীর পরিবার।

উল্লেখ্য গত সেপ্টেম্বর মাস থেকেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে আর্মেনিয়া আজারবাইজান সম্পর্ক। উভয় দেশই পারমাণবিক শক্তিধর না হওয়ায় কনভেনশনাল অর্থাৎ প্রথাগত যুদ্ধে স্বাভাবিকভাবে লিপ্ত হয়ে ওঠে দেশ দুটি। গত প্রায় একমাস এর উপর ধরে রক্তাক্ত লড়াই লড়তে দুই দেশ। হানা পালটানা ক্ষেপণাস্ত্র বর্ষণ পাল্টা গোলাবর্ষণে রক্তাক্ত অবস্থায় দু’দেশের একাধিক শহরাঞ্চল।

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই জোট বাধতে শুরু করেছে খ্রিস্টান ও মুসলিম দুনিয়া। আর্মেনিয়ান হয়ে সমর্থন জানিয়েছে ফ্রান্স শহর ইউরোপের একাধিক খ্রিস্টান দেশ। অপরদিকে আজারবাইজানের হয়ে সাওয়াল করছে পাকিস্তান তুরস্ক সহ দেশের একাধিক ইসলামিক রাষ্ট্রগুলি। রাশিয়া তার এই দুই প্রতিবেশীর মধ্যে মধ্যস্থতার উদ্যোগ নিলেও এখনো পর্যন্ত আশানুরূপ ফল পাওয়া যায়নি। তবে এই যুদ্ধ সে কোন ভাবে হোক বন্ধ করতে হবে তা না হলে সামনে আরও বড় বিপদ হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। মধ্যপ্রাচ্যের এই দুই দেশের যুদ্ধ কে কেন্দ্র করে যেভাবে পরস্পর বিরোধী জোট বাঁধছে ইসলামিক দুনিয়া, তাতে আগামী দিনের তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের দিকে ও পরিস্থিতি এগিয়ে গেলে আশ্চর্য হবার কিছুই নেই বলে মনে করছে আন্তর্জাতিক কূটনৈতিক মহল।

Related Articles

Back to top button
Close