fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

অবশেষে স্থায়ী বাড়ি পেতে চলছে দিনহাটার থাকা সাবেক ছিট মহলের বাসিন্দারা

নিজস্ব প্রতিনিধি, দিনহাটা : ছিটমহল বিনিময়ের পাঁচ বছর পর অবশেষে স্থায়ী বাড়ি পেতে চলছে দিনহাটার থাকা সাবেক ছিট মহলের বাসিন্দারা । দুই ধাপে ৫৮ টি পরিবারকে তাদের স্থায়ী আবাসনে নিয়ে যাওয়া হবে। প্রথম ধাপে রবিবার ২৬ টি পরিবারকে দ্বিতীয় ধাপে সোমবার ৩২ টি পরিবারকে নিয়ে যাওয়া হবে বলে ব্লক প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে। শহর সংলগ্ন দিনহাটা এক ব্লকের ভিলেজ ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত হিমঘর এলাকায় গড়ে উঠেছে স্থায়ী আবাসন। নতুন এই আবাসনে দিনহাটা এক ব্লকের কৃষি মেলা এলাকায় সেটেলমেন্ট ক্যাম্প ফাঁকা ৫৮ টি পরিবার থাকবেন বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে।

প্রতিটি পরিবারের জন্য আলাদা আলাদা থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সেখানে শোবার ঘর থেকে শুরু করে রান্নাঘর, শৌচাগার সহ আধুনিক সব ব্যবস্থা গড়ে তোলা হয়েছে। নতুন স্থায়ী বাড়িতে যাওয়ার এই খবরে খুশি কৃষি মেলা এলাকায় সেটেলমেন্ট ক্যাম্পে থাকা মৃণাল বর্মণ, সুরেন্দ্রনাথ বর্মণ , কাচুয়া বর্মন, ফুলবাবু বর্মন, গণেশ বর্মন,লক্ষ্মী মহন্ত, ফুলেশ্বরী বর্মণ প্রমুখ।

প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, পাঁচ বছর আগে ২০১৫ সালের ৩১ শে জুলাই মধ্যরাতে দুই দেশের মধ্যে ছিটমহল বিনিময় হয়। সেই দিন ভারতের অভ্যন্তরে থাকা বাংলাদেশের ৫১ টি ছিটমহল ভারতের সাথে যুক্ত হয়।সেদিন মধ্যরাতে প্রথম স্বাধীনতার স্বাদ পেয়েছিল সাবেক ছিটমহলের বাসিন্দারা। সে সময় বাংলাদেশের অভ্যন্তরে থাকা ভারতীয় ছিটমহলের বাসিন্দা যারা এদেশে আসতে চেয়েছিল তাদের সরকারিভাবে এদেশে নিয়ে আসার পর দিনহাটা কৃষি মেলা সহ জেলার তিন জায়গায় ক্যাম্প করে তাদের রাখার ব্যবস্থা করা হয়। কোচবিহার জেলার দিনহাটা, মাথাভাঙ্গা মেখলিগঞ্জে ধীরে ধীরে তাদের স্থায়ী বাসস্থান গড়ে ওঠে। দিনহাটার কৃষি মেলা এলাকায় সেটেলমেন্ট ক্যাম্পে থাকা বাসিন্দাদের আগামী দুইদিন রবিবার ও সোমবার ৫৮ টি পরিবারকে তাদের স্থায়ী বাসস্থানের জন্য নতুন বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হবে। ইতিমধ্যে নতুন এই বাসস্থানে কে কোথায় থাকবে তা নিয়ে ক্যাম্পে থাকা বাসিন্দাদের মধ্যে লটারি হয়।

দিনহাটার কৃষি মেলায় সেটেলমেন্ট ক্যাম্পে থাকা ভারতী বর্মন বলেন প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের নতুন আবাসনে নিয়ে যাওয়ার কথা বলা হয়েছে। সেখানেই তাদের স্থায়ী বাসস্থান হবে।এটা শুনে যেমন আনন্দ লাগছে তেমনি ওপারে তারা যেভাবে বাড়িঘর রেখে এসেছেন তার মূল্য পেলে তারা আগামী দিনগুলো নিশ্চিন্তে কাটাতে পারতেন। প্রশাসনের কাছে তারা অনুরোধ করেন এই বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখা হয়।ক্যাম্পে থাকা সোনেকা বর্মণ বলেন বিডিও ফোন করেছিল। রবিবার তাদের নতুন বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হবে। তারপর থেকে তারা সেখানেই থাকবেন। ইতিমধ্যে তারা সেই বাড়ি দেখেও এসেছেন। ছিলেন তারা বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ভারতীয় ছিটমহল দাসিয়ারছড়ায়। ছিটমহল বিনিময়ের পর তাদের নিয়ে আসা হয় দিনহাটার কৃষি মেলার সেটেলমেন্ট ক্যাম্পে। এতদিনে তারা নিজের বাড়ি পেতে চলছেন।

আরও পড়ুন: করোনায় মৃতদেহ সৎকার নিয়ে শুনানি শেষ হল হাইকোর্টে, স্থগিত রায়দান

সেটেলমেন্ট ক্যাম্পে থাকা মৃণাল বর্মণ বলেন ব্লক প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদেরকে রবিবার নতুন বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হবে। প্রশাসনের পক্ষ থেকেই তাদের মালপত্র নিয়ে যাওয়ার জন্য গাড়ির ব্যবস্থা করা হবে।পাশাপাশি তিনি বলেন তাদের জন্য স্থায়ী আবাসনের ব্যবস্থা করা হলেও তারা বাংলাদেশে যে জমি জায়গা রেখে এসেছেন তা বিনিময় ব্যাবস্থা করা হলে নতুবা সেখানকার জমির দাম অনুযায়ী তাদের সরকারিভাবে টাকা দেওয়া হলে আগামীতে তারা সংসার পরিজন নিয়ে চলতে পারবেন। দিনহাটা এক ব্লকের বিডিও সৌভিক চন্দ বলেন কৃষি মেলার সেটেলমেন্ট ক্যাম্পে ৫৮ টি পরিবার রয়েছে। তাদের জন্য স্থায়ী আবাসন গড়ে উঠেছে। কে কোথায় থাকবেন তা নিয়ে মাস কয়েক আগেই লটারির মাধ্যমে ঠিক হয়। প্রথম দফায় রবিবার ২৬ টি পরিবারকে পরের দিন সোমবার বাকি ৩২ টি পরিবারকে সেখানে নিয়ে দিয়ে নিজ নিজ ঘরের চাবি তুলে দেওয়া হবে

Related Articles

Back to top button
Close