fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

সাত সকালে মুম্বইয়ের শপিং মলে আগুন, ঘটনাস্থলে দমকলের ১৪টি ইঞ্জিন

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:   ভয়াবহ আগুনের গ্রাসে মুম্বইয়ের একটি শপিং মল। ঘটনাস্থলে দমকলে ১৪টি ইঞ্জিন। জানা যাচ্ছে, শনিবার রাত ২.৫৫ নাগাদ বোরিভেলি এলাকার একটি শপিং মলের বেসমেন্টে আগুন লাগে। এরপর সেই আগুন দ্রুত প্রথম দ্বিতলে ছড়িয়ে পড়ে। যদিও সেই সময় মলে কোনও সাধারণ মানুষ ছিল না, তাই কোনও হতাহতের খবর নেই। যদিও মলের দায়িত্বে থাকা নিরাপত্তারক্ষী ছিলেন। সূত্রের খবর তাঁরাই দমকলবাহিনী ডেকেছিলেন।

দমকল আধিকারিকরা জানিয়েছেন আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। কী ভাবে আগুন লাগল তা জানতে তদন্ত শুরু হয়েছে।দমকলের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, শনিবার সকালে দিকে আগুন লাগার ফলে সেভাবে ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। কারণ তখন শপিং মলে লোকজন সে ভাবে ছিল না। তবে অন্য সময় এই আগুন লাগলে বড়সড় বিপত্তি হতে পারত। এ দিন প্রথমে শপিং মলের বেসমেন্টে আগুন লাগে। সেখান থেকে আগুন ছড়াতেও শুরু করেছিল। কালো ধোঁয়ায় ঢেকে যায় গোটা এলাকা। তবে দ্রুত হারে আগুন খুব বেশি ছড়িয়ে যাওয়ার আগেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে যায় দমকলের অন্তত ১৪টি ইঞ্জিন। ফলে বড় বিপদ এড়ানো সম্ভব হয়েছে। জেসিবি মেশিনের সাহায্যে বেসমেন্টের পাশের গ্রিল খুলে উদ্ধারকাজ শুরু হয়েছে।কয়েকদিন আগে দক্ষিণ মুম্বইয়ে একটি ব্যাঙ্কে আগুন লেগেছিল। নরিম্যান পয়েন্ট এলাকায় ব্যাঙ্ক অফ বাহরিন অ্যান্ড কুয়েতের বিল্ডিংয়ে আগুন লাগে।

আরও পড়ুন: পশ্চিমবঙ্গে হাসপাতালগুলিতে করোনা চিকিৎসার ব্যাপক ঘাটতি, নয়া নির্দেশিকা স্বাস্থ্য দফতরের

ওই শপিং কমপ্লেক্সের মধ্যে অবস্থিত একটি দোকানে শর্ট সার্কিট থেকেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে বলে দাবি করেছেন শপিং সেন্টারের সিকিউরিটি ইনচার্জ। তিনি বলেন, ‘রাত ২.৫৫ মিনিটে আগুন লাগে। আগুন লাগার কথা গার্ড প্রথম আমাকে জানান। আমি সঙ্গে সঙ্গেই দমকলে খবর দিই। এই শপিং কমপ্লেক্সের মধ্যে ৭৭টি দোকান রয়েছে। তার মধ্যে একটি দোকানে শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লাগে।’ জেসিবি মেশিন ব্যবহার করে আগুন লাগা অংশ ভেঙে ফেলে ভেতরে হাওয়া ঢোকানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

গত মাসে দক্ষিণ মুম্বইয়ের নরিম্যান পয়েন্ট এলাকায় ব্যাংক অফ বাহরিন অ্যান্ড কুয়েতের অফিসে আগুন লাগে। গত মাসেই বাণিজ্যনগরী মুম্বইয়ের ক্রফোর্ড মার্কেট এলাকার কয়েকটি দোকানে আগুন লেগেছিল। এই বছর ফেব্রুয়ারী মাসে নভী মুম্বইয়ের নেরুল সিউড এলাকার সেক্টর ৪৪-এর একটি ২১তলা বিল্ডিঙে ভয়াবহ আগুন লাগে।

Related Articles

Back to top button
Close