fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

নুর আলমের বহিষ্কারের পর দিনহাটা শহর বাজি পটকা ফাটানো হল

নিজস্ব সংবাদদাতা দিনহাটা: শিক্ষিকা ধর্ষণের অভিযোগে তৃণমূল নেতা নুর আলমের বহিষ্কারের পর রাতে দিনহাটা শহর একের পর এক বাজি পটকা ফাটানো হল। সোমবার রাত সাড়ে দশটা নাগাদ দিনহাটা শহরের কলেজ পাড়া থেকে সুভাষ ভবন চত্বর সহ একাধিক স্থানে এই বাজি পটকা ফাটানো হয়।

এদিকে এদি রাতে শহরের বিভিন্ন স্থানে একের পর এক বাজি পটকা ফাটানো ঘটনায় শহরবাসীর মধ্যেও আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। লকডাউন চলাকালীন এভাবে একের পর এক বাজি ফাটানোর ঘটনায় একদিকে যেমন শব্দ দূষণ হয় তেমনি মানুষ যেভাবে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে অবিলম্বে অভিযুক্তদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান শহরবাসীর অনেকেই।

উল্লেখ্য, শিক্ষিকা ধর্ষণ কাণ্ডে তৃণমূলের সিতাই বিধানসভা কেন্দ্রের কার্যকরী কমিটির আহ্বায়ক কোচবিহার জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ নুরআলম হোসেনকে গত সাতদিন আগে শোকজ করে জেলা নেতৃত্ব। শোকজের পর সাত দিন সময় দেওয়া হয়। এই সময়ের মধ্যে উত্তর না মেলায় সোমবার দলের জেলা সভাপতি বিনয় কৃষ্ণ বর্মন দলের জেলা কার্যকরী সভাপতি প্রাক্তন সাংসদ পার্থ প্রতিম রায় কে পাশে বসিয়ে সাংবাদিক বৈঠক করে। তৃণমূলের এই নেতাকে বহিষ্কারের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই রাতে দিনহাটা শহরের একাধিক স্থানে এই বাজি পটকা ফাটানো হয়। এই ঘটনায় দলের অন্দরেও নানা প্রশ্ন উঠে এসেছে।

ঘটনা প্রসঙ্গে বিজেপির রাজ্য কমিটির সদস্য দীপ্তিমান সেনগুপ্ত বলেন প্রাথমিক স্কুল শিক্ষিকা ধর্ষণ কাণ্ডে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা কে লোক দেখানো বহিষ্কার করা হলেও পুলিশ এখনো তাকে খুঁজে পায়নি। পাশাপাশি এদিন যারা বাজি পটকা ফাটিয়েছে তারা তৃণমূলেরই অন্য গোষ্ঠীর কর্মীসমর্থকরা উল্লাসিত হয়েই এই কাজ করেছে। বিজেপির কোচবিহার জেলা সম্পাদক সুদেব কর্মকার বলেন ধর্ষণ কাণ্ডে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতাকে বহিষ্কার করা হলেও পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে টালবাহানা করছে। ওই নেতাকে গ্রেফতারের দাবিতে দলের পক্ষ থেকেও আন্দোলনে নামা হবে।
দিনহাটা শহর তৃণমূল কংগ্রেস নেতা অসীম নন্দী অবশ্য বলেন এদিন রাতে শহরের বিভিন্ন স্থানে যেভাবে একের পর এক বাজি পটকা ফাটানো হয়েছে এর সাথে দলের কেউ যুক্ত নয়। তবে পুলিশকে সঠিক ঘটনা খতিয়ে দেখা দরকার।
তৃণমূল কংগ্রেস নেতা শ্রমিক সংগঠনের জেলা সহ-সভাপতি বিশু ধর বলেন নিশীথ প্রামানিক কে দল থেকে বহিষ্কারের সময় কিছু মানুষ উল্লসিত হয়ে বাজি পটকা ফাটিয়ে ছিল। তৃণমূল নেতা নুর আলম হোসেনকে বহিষ্কারের পর যারা বাজি পটকা ফাটায় তারা আসলে বিজেপি লোকজন। তৃণমূল স্বচ্ছ ভাবমূর্তির দল।এই দলে দুর্নীতির কোনো জায়গা নেই বলেও তিনি উল্লেখ করেন।
বিষয়টি নিয়ে দিনহাটা থানার আইসি সঞ্জয় দত্ত জানান এদিন রাতে শহরের একাধিক স্থানে বাজি পটকা ফাটানো ঘটনা ঘটে। পুলিশ গোটা ঘটনা খতিয়ে দেখছে।

Related Articles

Back to top button
Close