fbpx
কলকাতাহেডলাইন

উপসর্গ থাকলেই রোগীদের সেফ হোমে চলে আসার পরামর্শ ফিরহাদের

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: উপসর্গহীন বা মৃদু উপসর্গ যুক্ত ব্যক্তিদের হয়ে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। সেক্ষেত্রে সমস্ত করোনা আক্রান্তদের নজরদারি যে যথাযথ হচ্ছে না সে বিষয়ে ইতিমধ্যেই অভিযোগ গেছে পুরদফতরে। আর তাই সেই কারণে এই মৃদু উপসর্গ যুক্ত ও উপসর্গহীন করোনা আক্রান্তদের ফের সেফ হোমে থাকার পরামর্শ দিলেন পুর প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। পাশাপাশি বাড়িতে এ ধরনের রোগী থাকলে যে বেশ কিছু সমস্যা হচ্ছে সেকথাও এদিন স্বীকার করে নেন তিনি।

এদিন ফিরহাদ হাকিম জানান, “হোম কোয়েরেন্টাইনে যেসব রোগী রয়েছেন, তাদের অনেকের ক্ষেত্রেই নিয়মিত নজরদারির সমস্যা হচ্ছে। বাড়িতে তেমন লোকবল না থাকলে রোগীর অবস্থার অবনতি হলে তৎক্ষণাৎ অ্যাম্বুলেন্সের জন্য যোগাযোগ করার ক্ষেত্রে সমস্যা হয়।

আরও পড়ুন:জল সঙ্কটে শিল্পাঞ্চল, দুর্গাপুর ব্যারেজের লকগেট মেরামতে উন্নত প্রযুক্তি ব্যাবহারের দাবি শহরবাসীর

তাছাড়া বাড়িতে অ্যাম্বুলেন্সের পৌঁছতেও কিছুটা সময় লাগে’। তাই হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা যেসব রোগীরা সরাসরি কোনও ডাক্তারের নজরদারিতে নেই বা ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছেন না, বাড়িতে অক্সিজেন দেওয়ার ব্যবস্থা নেই, তাদের নজরদারি ও সুরক্ষায় সেফ হোম চলে আসার পরামর্শ দেন ফিরহাদ হাকিম পুর প্রশাসক আরও বলেন, মূলত পুজোর বাজারে ভিড় ও কলকাতা ও উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলায় পুজোয় কিছু জায়গায় ভিড় হওয়ায় এই জেলাগুলিতে এবং শহুরে এলাকায় পুজোর পর করোনা সংক্রমণ বেড়েছে। তবে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর ও কলকাতা পুরসভার তরফ থেকে নিয়মিত প্রচার ও নজরদারি চালানো হচ্ছে বলেও জানান ফিরহাদ হাকিম।

Related Articles

Back to top button
Close