fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জাতীয় নেত্রী, ‘বহিরাগত তত্ত্বে’ বিজেপিকে পাল্টা তোপ ফিরহাদের

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায় কলকাতা: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একজন জাতীয় নেত্রী। দেশ শাসন করতে পারেন। তোপ দাগলেন দলের সাধারণ সম্পাদক তথা পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। শনিবার সাংবাদিক দের মুখোমুখি দিলীপ ঘোষের পাল্টা প্রতিক্রিয়া জানান। তিনি বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিজস্ব যে শক্তি আছে, তাতে উনি দেশকে নেতৃত্ব দিতে পারেন। সুতরাং আমাদের কোনও বহিরাগতদের লাগেনা।’ এর আগেই বিজেপি সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ বহিরাগত প্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যো পাধ্যায় কে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেছিলেন। দিলীপের কথায় স্পষ্ট তৃণমূল প্রশান্ত কিশোরের মত বহিরাগত দিয়ে দল চলাচ্ছে। এদিন তারই পাল্টা প্রতিক্রিয়া জানালেন ফিরহাদ।

কোনও বহিরাগত নয় তৃণমূল একক ক্ষমতায় বামেদের বাংলা থেকে হটিয়ে ছিল। সে কথা মনে করিয়ে ফিরহাদ আরও বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সিপিএমের বিরুদ্ধে লড়াই করে একটা দল তৈরি করে সিপিএমকে সরিয়েছে। ৩৪ বছরের জগদ্দল পাথর আমরা নিজেরা সরিয়েছি। মমতা বন্দ্যো পাধ্যায়ের নেতৃত্বে আমরা বাংলাকে জয় করেছি এবং ধরে রাখবো।’
অন্য দিকে এদিন সাংবাদিক বৈঠকে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দাবি করেছিলেন রাজ্য জুরে দুর্নীতির সরকার চলছে। তার পাল্টা ফিরহাদ বলেন, ‘এটা দুর্নীতিমুক্ত সরকার যেটা মমতা বন্দ্যো পাধ্যায়ের নেতৃত্বে চলছে। দিলীপ ঘোষরা কোনদিন সরকার করতে পারবেন না। তা বাস্তবে সম্ভব হবে না। কিন্তু যে সকল সরকার ওনারা চালান তাহল তাণ্ডবের সরকার। অর্থাৎ যারা তান্ডব করে মানুষকে খুন করে মানুষকে মারে দুর্নীতি করে এই সরকার ওনারা চালান।’

পাশাপাশি বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং এদিন সকালে বোমা ফাটিয়ে বলে ছিলেন শুভেন্দু সহ পাঁচ তৃণমূল সাংসদ খুব শীঘ্রই বিজেপি তে যোগ দেবেন। সে প্রসঙ্গে ফিরহাদ বলেন, ‘অর্জুন সিং যখন দল ছেড়ে চলে গেছে যখন অন্য দলের ব্যাপারে কথা বলার কোন অধিকার নেই। গায়ে মানেনা আপনি মোড়ল। আমরা যারা তৃণমূল কংগ্রেস করি সে সৌগত রায় বা আমি হই বা অন্য কেউ কংগ্রেস নামটা রয়েছে গান্ধীজীর জন্য। অর্জুন সিং এটা উপলব্ধি করতে পারবে না। এ সম্পর্কে তাদের কোনো উপলব্ধি নেই। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, আমি, সৌগত রায় বা সুব্রত মুখোপাধ্যায় আমরা নীতিগতভাবে গান্ধীবাদ ও সুভাসবাদে বিশ্বাস করি। তাই তৃণমূল কংগ্রেস করি। গান্ধীবাদী বিশ্বাস করে আমি এই দল করছি। গান্ধী হত্যাকারীর দিকে আমরা যেতে পারি না। গান্ধী হত্যাকারীর দিকে যাওয়া আমার পাপ। আদর্শগতভাবে গান্ধীবাদ সুভাষবাদ জিন্দাবাদ বলতে বলতে বড় হয়েছে। শুভেন্দু রাজনীতি করেছে ছাত্র পরিষদ থেকে, সেও গান্ধীবাদ সুভাষ বাদ জিন্দাবাদ বলতে বলতে বড় হয়েছে। সে নীতি অর্জুন ভুলতে পারে। কিন্তু আমরা হবো না। সৌগত দার কাছ থেকে আমি নিজে গান্ধীবাদ সুভাষ বাদ, ধর্ম নিরপেক্ষতা নীতি শিখেছি। তাই আমরা কেউ যেতে পারব না। অর্জুন যেতে পারে জুটমিলের জন্য। যেখানে সেখানে যেতে পারে। সৌগত রায়ের মত শিক্ষিত মানুষ বিজেপিতে যেতে পারে না।’

Related Articles

Back to top button
Close