fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

হোপ ফর চিলড্রেন, বিলিভার্স ইস্টার্ন চার্চ ও সংগঠনের উদ্যোগে খাদ্য বিতরণ

ভীষ্মদেব দাশ, পূর্ব মেদিনীপুর: রাজ্যজুড়ে করোনা ভাইরাস আতঙ্কে সকলে ঘরবন্দী। দীর্ঘ লকডাউনের কারণে কলকারখানা থেকে শুরু করে সমস্তকিছু এক্কেবারে বন্ধ। এমন পরিস্থিতিতে দিন আনা দিন খাওয়া মানুষের একেবারে করুন অবস্থা হয়ে দাঁড়িয়েছে। ফলে দীন-দরিদ্র মানুষ ভীষন খাদ্য সঙ্কটে রয়েছেন।  এমন সঙ্কটময় পরিস্থিতিতে দুঃস্থ মানুষের পাশে দাঁড়াতে এগিয়ে এলেন ভুপতিনগরের মাধাখালি এবং ভগবানপুরের কাকরা “হোপ ফর চিলড্রেন” (ব্রিজ অফ হোপ) প্রোজেক্ট। হোপ ফর চিলড্রেন হল বিলিভার্স ইস্টার্ন চার্চের একটি শিশু বিকাশ প্রকল্প। যেখানে দারিদ্র্যসীমার নীচে বসবাসকারী শিশুদের সম্পূর্ণ বিনামুল্যে শিক্ষা, পুষ্টিকর মিড-ডে মিল, শিক্ষা সামগ্রী এবং দৈনন্দিন জীবনে ব্যাবহার্য অন্যান্য জিনিসপত্র দেওয়া হয়।

আজকের দিনে এই দুঃসময়ে প্রোজেক্টের শিশুদের পাশাপাশি এলাকার প্রায় ১৫০ দুঃস্থ পরিবারের হাতে “কমিউনিটি কিচেন” এর মাধ্যমে রান্না করা খাদ্য তুলে দিল এই সংস্থা। সরকারি নিয়ম মেনে হাতে গ্লাভস, মুখে মাস্ক পরে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে এদিন খাদ্য বিতরণ করা হয়। সেই সঙ্গে যারা খাওয়ার নিতে এসেছিলেন তারা সকলে মুখে মাস্ক পরে এসেছেন এবং হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে ভাল করে হাত ধুয়ে তবেই খাওয়ার নিয়েছেন। জমায়েত এড়াতে প্রতিষ্টানেের পক্ষ থেকে অনেকের বাড়িতে খাওয়ার পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। বিলিভার্স ইস্টার্ন চার্চের মহামান্য বিশপের কথায় ‘এই দুর্দিনে দুঃস্থ মানুষের হাতে রান্না করা খাওয়ার তুলে দিতে পেরে আমরা ভীষন খুশি’। প্রোজেক্ট ইনচার্জ বিউটি প্রধান এবং পঞ্চানন বারিক বলেন আজ থেকে যতদিন লকডাউন চলবে ততদিন এভাবেই তারা মানুষের পাশে থাকবেন।

আরও পড়ুন: আগে নির্দেশিকাটা বুঝুন, পরে পিসির হয়ে ওকালতি করবেন: রাহুল সিনহা

পাশাপাশি খেজুরির কলাগেছিয়া ইউনাইটেড স্পোর্টস এন্ড কালচারাল সেন্টারের উাদ্যোগে কলাগেছিয়া পঞ্চায়েতের ৩০০টি পরিবারকে সচেতন করার পাশাপাশি ডাল, সাবান দেওয়া হল। কলাগেছিয়া গ্রাম ঘুরে ঘুরে প্রত্যেকের বাড়ি ঘুরে সমস্যার কথা জানতে চান ইউনাইটেড কালচারাল এন্ড স্পোর্টস সেন্টারের সদস্যরা। পাশাপাশি সকলের বাড়িতে সচেতনতামূলক পোস্টার লাগানো হয়েছে। অজয়া সারদা মিশন বিদ্যাপীঠের (নার্সারী) উদ্যোগে ছাত্র-ছাত্রীদের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। প্রায় ৭০জন ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে খাদ্য সামগ্রী তুলে দেন প্রধান শিক্ষক চন্দন প্রামাণিক।

Related Articles

Back to top button
Close