fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

নয়া নির্বাচন কমিশনারের পদে বসলেন প্রাক্তন অর্থসচিব রাজীব কুমার

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতের নির্বাচনের কমিশনের নতুন প্রধান রাজীব কুমার। অবসরপ্রাপ্ত আমলা রাজীব কুমার পয়লা সেপ্টেম্বর থেকে নির্বাচন কমিশনের প্রধানের দায়িত্ব নিচ্ছেন। বর্তমান প্রধান নির্বাচন কমিশনার অশোক লাভাসার মেয়াদ শেষ হচ্ছে ৩১ অগাস্ট। ওই দিনই রাজীব কুমারের হাতে দায়িত্ব তুলে দেওয়া হবে। শুক্রবার রাতে আইন মন্ত্রকের পক্ষ থেকে তাঁর নিয়োগের কথা জানিয়ে বিজ্ঞপ্তিও প্রকাশ করা হয়েছে। নয়া নির্বাচন কমিশনার রাজীব কুমারই আগামী ২০২৪ সালের লোকসভা ভোট পরিচালনার দায়িত্বে থাকবেন।

১৯৮৪ সালের ব্যাচের ঝাড়খণ্ড ক্যাডারের IAS অফিসার রাজীব কুমার।  রাজীব কুমার ৫ বছরের মেয়াদে নির্বাচন কমিশনের প্রধানের দায়িত্ব নিচ্ছেন। ২০২৫ সালে তাঁর অবসর। অর্থাত্‍ ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্বে রাজীব কুমার থাকতে পারেন। নিয়ম অনুযায়ী, প্রধান নির্বাচন কমিশনারের মেয়াদ ৬ বছর, যত দিন না তাঁর ৬৫ বছর বয়স হচ্ছে। যেটা আগে। রাজীব কুমারের জন্ম ১৯৬০ সালে।  অশোক লাভাসা গত সপ্তাহে নির্বাচন কমিশনের প্রধানের পদে ইস্তফা ঘোষণা করেন। তিনি এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাঙ্কের ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে যোগ দিচ্ছেন।

রাজীব কুমার বর্তমানে পাবলিক এন্টাপ্রাইসেস সিলেকশন বোর্ডের চেয়ারম্যান। ২৯ এপ্রিল তিনি দায়িত্ব নিয়েছিলেন, ২০২৩ সালের ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত মেয়াদ ছিল। ২০১৭-র পয়লা সেপ্টেম্বর থেকে ২০১৯ সালের ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তিনি ছিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের সচিব। তার আগেও কেন্দ্রের একাধিক মন্ত্রকের সচিব হিসেবে দায়িত্ব সামলেছেন। ব্যাঙ্কিং সেক্টরে সংস্কারে বড় ভূমিকা রয়েছে রাজীব কুমারের। ১০টি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ককে যুক্ত করে ৪টি করার ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা ছিল তাঁর।

আরও পড়ুন: তুরস্কের সঙ্গে গ্রিস-ইউরোপের নতুন করে উত্তেজনা

নির্বাচন কমিশন থেকে ইস্তফা দিয়ে ফিলিপিন্সের এশিয়ান ডেভলপমেন্ট ব্যাঙ্ক (এডিবি)-র ভাইস প্রেসিডেন্ট নিযুক্ত হয়েছেন লাভাসা। তবে এই পদক্ষেপ যে রাজনৈতিক জল্পনার বাইরে রয়েছে তা বলা যাবে না।  গত লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহকে বাকি দুই নির্বাচন কমিশনারের মতো ক্লিনচিট দিতে আপত্তি করেছিলেন তিনি। নির্বাচন শেষে সেই লাভাসা ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে আয় বহির্ভূত সম্পত্তির অভিযোগ আনে আয়কর বিভাগ। বৈদেশিক মুদ্রা আইন ভাঙার অভিযোগে লাভাসার ছেলে আবিরের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে লাভাসা সততার মূল্য দিতে হচ্ছে বলে সেই সময় মন্তব্য করেছিলেন লাভাসা।

Related Articles

Back to top button
Close