fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

পানীয় জল ও বিদ্যুতের দাবিতে রাস্তার টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের

মিলন পণ্ডা, চন্ডিপুর (পূর্ব মেদিনীপুর): ঘূর্ণিঝড় আমফানের পর প্রায় দেড় মাস অতিক্রম হতে চললো। এখনও পর্যন্ত বিদ্যুৎ ও পানীয় জল পরিষেবা সচল হয়নি অধিকাংশ গ্রামগুলিতে। বিদ্যুৎ ও পনীয় জল স্বাভাবিক আশায় রাস্তায় উপর টায়ার জ্বালিয়ে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভের সামিল হল গ্রামবাসীরা। বৃহস্পতিবার সকাল নয়টা নাগাট পূর্ব মেদিনীপুর জেলার শীতলপুরের গ্রামের প্রায় কয়েকশো বাসিন্দা রাস্তার ওপর টায়ার জ্বালিয়ে বাঁশ ফেলে অবরোধ ও বিক্ষোভ দেখান। এর জেরে দিঘা- নন্দকুমার ১১৬ বি  জাতীয় সড়ক অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। রাস্তার উপর দাঁড়িয়ে পড়ে একাধিক যাএীবাহী বাস ও পণ্যবাহী লরি। ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। বিক্ষোভকারীদের বুঝিয়ে অবরোধ তুলে দেন।

প্রসঙ্গত,  ঘূর্ণিঝড় আমফানের তাণ্ডবের পর প্রায় দেড়  মাস অতিক্রান্ত হল। এর তাণ্ডবের জেলার একাধিক বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙ্গে পড়ে গিয়েছে। এছাড়াও পানীয় জল পরিষেবা এখনো স্বাভাবিক হয়নি। এখনও পর্যন্ত বেশকিছু গ্রামে পৌঁছায়নি বিদ্যুৎ ও পানীয় জল পরিষেবা। এতদিন পরও অন্ধকারে ডুবে রয়েছে একাধিক গ্রাম। এর প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকালে দিঘা- নন্দকুমার ১১৬বি জাতীয় সড়কের বনভ‍্যাড়া স্টপেজের রাস্তার ওপর টায়ার জ্বালিয়ে, বাঁশ ফেলে অবরোধ করে রাখেন স্থানীয়  টুলিয়াপাট গ্রামের গ্রামবাসীরা। অবরোধের ফলে যান চলাচল বিপর্যস্ত হয়ে পড়ায় সমস্যায় পড়েন যাত্রীরা।

বিক্ষোভকারী এক স্থানীয় বাসিন্দা বলেন, আমরা প্রশাসনকে পানীয় জল ও বিদ্যুৎ দাবি জানিয়েছি বারংবার। কিন্তু তাও আমাদের গ্রামে এখনও পর্যন্ত বিদ্যুৎ পরিষেবা পৌঁছায়নি। তাই আমরা অবরোধ করে বিক্ষোভে সামিল হলাম৷ কবে বিদ্যুৎ পরিষেবা ও পানীয় জল স্বাভাবিক হবে তার উত্তর এখনও পর্যন্ত গ্রামবাসীদের কাছে নেই। বিদ্যুৎ পরিষেবা ও পানীয় জল কবে স্বাভাবিক হবে সেইকারনে দিন গুনছেন গ্রামবাসী।

Related Articles

Back to top button
Close