fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কোলাঘাটে নকল ওয়েবসাইট করে স্কুলে চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা, শুরু তদন্ত

বাবলু ব্যানার্জি, কোলাঘাট: রাজ্য জুড়ে চলছে করোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্ক। কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের নানা বিধি-নিষেধ কে সামনে রেখে সাধারণ মানুষ থেকে যারা দিন আনে দিন খায় তাদের অবস্থা সংকটে। এই সংকটময় অবস্থাতেই পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কোলাঘাটে শিক্ষক পদে নিয়োগ নিয়ে প্রতারণার কবলে পড়ল অসংখ্য যুবক-যুবতী। এক শ্রেণীর দৈনিক সংবাদপত্র প্রকাশিত হয়েছিল শিক্ষক নিয়োগ করা হবে কোলাঘাট নবোদয় বাংলা মাধ্যমিক স্কুলে। সেই মতো রাজ্যের বিভিন্ন স্থান থেকে বেকার যুবক যুবতীরা নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে আবেদন করেন। ৫০১ টাকা অনলাইনে জমা করতে থাকে। বিজ্ঞাপনের শিক্ষক পদের জন্য বেতন ছিল শিক্ষক পদের জন্য ২২ হাজার ৭০০ টাকা ও শিক্ষক পদের জন্য ১৫ হাজার ৫০০ টাকা। সেই সঙ্গে অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা। বিজ্ঞাপনে ছিলনা কোন নম্বর। শুধু ছিল আবেদন করতে হবে ২৫ সেপ্টেম্বর এর মধ্যে।

বিজ্ঞাপন দেখে অনেকেই আবেদন করতে থাকেন। তারা বিজ্ঞাপনে দেওয়া ওয়েবসাইট নিয়ে অনলাইনে ফরম পূরণ করার পর অভিযোগ করে টাকা কেটে নেওয়ার পর এই ওয়েবসাইটটি উধাও হয়ে যাচ্ছে, নতুন করে গেলে পেমেন্ট অপশন আসছে। অদ্ভুত ব্যাপার ২৫ সেপ্টেম্বর লাস্ট ডেট থাকার কথা বলা হলেও ওয়েব সাইটটি মঙ্গলবার অর্থাৎ ২২ সেপ্টেম্বর এর পর আর খুলছে না। এই বিজ্ঞাপন দেখে অনেকেই আবেদন করেছিল রাজ্যের বিভিন্ন স্থান থেকে।

পাঁশকুড়া এলাকার শান্তনু চক্রবর্তী নামে এক শিক্ষক তার বোনের জন্য ফর্ম ফিলাপ করার পর বুঝতে পারে তিনি প্রতারণার ফাঁদে পা দিয়েছেন। বোনের জন্য ই মেইলে টাকাকে ফেরতের আবেদন জানালে ব্যাংক একাউন্টের বিশদ বিবরণ চেয়ে পাঠায়। তখনই বুঝতে কোন অসুবিধা হয়নি আবার একটা নতুন প্রতারণার মধ্যে পড়তে যাচ্ছি। এ এইরকম হাওড়া-মেদিনীপুর বাঁকুড়া স্থানের যুবক-যুবতীরা প্রতারণার শিকার।

স্থানীয় সমাজসেবী রাজু বেরাও প্রশাসন সূত্রে জানা যায় কোলাঘাট চত্বরে এই ধরনের কোন স্কুল নেই। কোলাঘাট প্রশাসনিক প্রধান মদনমোহন মন্ডলকে এ বিষয়ে ধরা হলে তিনি বলেন বিষয়টি নিয়ে তিনি দেখছেন। অন্যদিকে পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে কোলাঘাট থানার ওসি ও বিষয়টি জানতে পেরেছেন বলে জানা যায়।

Related Articles

Back to top button
Close