fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

চিটফান্ডে লগ্নির টাকা ফেরৎ পাইয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণা, গ্রেফতার ১ 

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায় বর্ধমান:  চিটফাণ্ডে লগ্নি করা টাকা ফেরত পাইয়ে দেওয়ার নাম করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনায় গ্রেপ্তার হল এক যুবক ।  ধৃতের নাম আশল নাম মহেশ সিং । উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বেলঘরিয়া থানার নওয়াদাপাড়ায় তার বাড়ি । যদিও এই নাম গোপন করে মহেশ কখনও নিজেকে প্রকাশ যাদব আবার কখনও রণিত সিনহা বলে পরিচয় দিত ।এই সব ছদ্ম নাম নিয়ে বিভিন্ন জনকে ফাঁদে ফেলে মহেশ সিং লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে পুলিশ জেনেছে ।

পূর্ব বর্ধমানের মেমারি থানার পুলিশ বুধবার রাতে বাড়ি থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করে । বৃহস্পতিবার ধৃতকে পেশ করা হয় বর্ধমান আদালতে । হাতিয়ে নেওয়া টাকা উদ্ধার ও ঘটনার সঙ্গে জড়িত বাকিদের হদিশ পেতে তদন্তকারী অফিসার ধৃতকে ১০ দিন নিজেদের হেফাজতে নিতে চেয়ে আদালতে আবেদন জানান । সিজেএম সুজিত কুমার
বন্দ্যোপাধ্যায় ধৃতকে ৭ দিন পুলিশী হেফাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন ।

পুলিশ জানিয়েছে, মেমারি থানার তাজপুরে বসবাস করেন দেবপ্রসাদ প্রামাণিক । কয়েকমাস আগে রণিত সিনহা পরিচয় দিয়ে এক ব্যক্তি তাঁকে ফোন করেন । ওই ব্যক্তি দেবপ্রসাদ বাবুকে চিটফান্ডে লগ্নিকরা টাকা ফেরত পাইয়ে দেওয়ার আশ্বাস দেন। এরপর ওই ব্যক্তি দেবপ্রসাদ বাবুকে মেসেজ পাঠিয়ে অ্যাকাউন্ট নম্বর দিতে বলেন। ওই অ্যাকাউন্ট নম্বরেই ১৬ লক্ষ টাকা ফেরত দেওয়া হবে বলে দেবপ্রসাদ বাবুকে জানানো হয়। একই সঙ্গে বলা হয় টাকা পেতে গেলে তাঁকেও কিছু টাকা দিতে হবে ।সেইমতো দেবপ্রসাদ বাবুকে একটি কোম্পানীর অ্যাকাউন্টে টাকা দিতে বলা হয় ।

দেবপ্রসাদ বাবু কিছু যাচাই না করে সরল বিশ্বাসে ৩ দফায় তিনি ৫ লক্ষ ১৫ হাজার টাকা ওই অ্যাকাউন্টে জমা দেন। টাকা পাঠানোর কিছুদিন পর থেকে ওই ব্যক্তি দেবপ্রসাদ বাবুর সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় । নানাভাবে চেষ্টা করেও দেবপ্রসাদ বাবু ওই ব্যক্তির সঙ্গে আর যোগাযোগ করতে পারেন নি।

প্রতারিত হয়েছেন বুঝতে পারার পর দেবপ্রসাদ বাবু সম্প্রতি মেমারি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন । তদন্তে নেমে পুলিশ যে অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠানো হয়েছিল এবং যে ফোন নম্বার থেকে দেবপ্রসাদ বাবুকে ফোন করা হয়েছিল তার তথ্য সংগ্রহ করে । অ্যাকাউন্টটি মহেশের বলে পুলিশ জানতে পারে । সেই তথ্য যাচাই করে পুলিশ প্রতারণায় মহেশের জড়িত থাকার বিষয়ে নিশ্চিত হয়। এরপরেই পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তার করে ।

Related Articles

Back to top button
Close