fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

জাল খাজনা রশিদ বানিয়ে গ্রামবাসীদে সঙ্গে প্রতারণা, গ্রেফতার পঞ্চায়েত কর্মী

শ‍্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগনা: জাল খাজনা রশিদ বানিয়ে গ্রামবাসীদে সঙ্গে প্রতারণা করার দায়ে গ্রেফতার হলেন এক পঞ্চায়েত কর্মী। বসিরহাট মহকুমার বসিরহাট এক নম্বর ব্লকের সাকচুড়া ও বাগুন্ডি গ্রাম পঞ্চায়েতের অস্থায়ী কর্মী মলয় কুমার ঘোষকে দীর্ঘদিন ধরে জাল খাজনা রশিদ বানিয়ে গ্রামবাসীদের প্রতারণা করার অভিযোগে গ্রেফতার করল বসিরহাট থানার পুলিশ। বিগত দু’বছর ধরে পঞ্চায়েতের খাজনার রশিদ প্রেস থেকে ছাপিয়ে সম্পূর্ণ জাল রশিদ তৈরি করে মানুষকে বোকা বানিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা তুলেছে গ্রামবাসীদের কাছ থেকে।

ওই পঞ্চায়েত সদস্যের বিরুদ্ধে প্রতারণা অভিযোগ করছে গ্রামবাসীরা। আজ বুধবার সকালে সাকচুড়া, বাগুন্ডি গ্রাম পঞ্চায়েতের একজন গ্রাহকের কাছথেকে খাজনার রশিদ দিয়ে ২২০০ টাকা নিলে সন্দেহ হয় ওই ব্যক্তির। তখনই পঞ্চায়েতের প্রধান শরিফুল গাজী সহ অন্যান্য কর্মীরা ছুটে এসে দেখে পুরোটাই জাল। প্রধান বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আমাদের কাছে অভিযোগ আসছিল ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে। কিন্তু এবার হাতেনাতে প্রমাণ হয়ে গেলো যে সমস্ত গ্রামবাসীদের যেসব খাজনার রশিদ দেওয়া হয়েছে তার পুরোটাই জাল সেটা বোঝা গেল।

আরও পড়ুন: ফালাকাটা থেকে আসামের গোসাইগাও পাঁয়ে হেটে রওনা দিলেন এক মা!

ধৃত পঞ্চয়েত সদস্যের বিরুদ্ধে গ্রামবাসীদের আনা অভিযোগ সত্যি কিনা সেটা উপযুক্ত তদন্ত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হোক বলে দাবি তুলেছেন সবাই। বসিরহাট থানার পুলিশকে খবর দিলে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। পুলিশ প্রতারকের বাড়ি উত্তর বাগুন্ডি গ্রামে গিয়ে তল্লাশি করে দেখা যায় বেশ কিছু খাজনার রশিদ পুড়িয়ে দিয়েছে। বুধবার বসিরহাট মহকুমা আদালতে তোলা হয় ধৃত মলয় ঘোষকে। ধৃত পঞ্চায়েত সদস্যের বিরুদ্ধে আদালতের কাছে আবেদন জানিয়েছে পুলিশ হেফাজতে নেওয়ার জন্য।

Related Articles

Back to top button
Close